প্রয়াত হুমায়ূন কবিরের স্মরণ সভায় মোকতাদীর চৌধুরী এমপি

‘হুমায়ূন কবির ছিলেন কাজের কাজী, কথার কাজী নয়’

শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০ | ৪:১১ অপরাহ্ণ | 344 বার

‘হুমায়ূন কবির ছিলেন কাজের কাজী, কথার কাজী নয়’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার দুইবারের সাবেক সফল চেয়ারম্যান, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও সশস্ত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপ-মন্ত্রী প্রয়াত অ্যাডভোকেট হুমায়ূন কবিরের স্মরণ সভা ও দোয়া মাফফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার আয়োজনে শহরের ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।


সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থানী কমিটির সভাপতি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদীর চৌধুরী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসাদ র আ ম উবায়দুল মোকতাদীর চৌধুরী এমপি বলেন, ছাত্রজীবন থেকে শুরু করে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত হুমায়ূন কবির মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদ নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মুক্তিযুদ্ধের পটভূমি তৈরি করতে হুমায়ূন কবির বড় ধরনের অবদান রেখেছিলেন তা আমরা জানি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার আগে আওয়ামীলীগের নেতার অভাব ছিল না। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর কেউ সাহস করে মুখ খুলেনি। তখন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হুমায়ূন কবির ও তার বন্ধুরা দাঁড়িয়েছিলেন। শুধু তা ই নয়, এরশাদ সরকারের সময়ে তৎকালীন সংসদে মাত্র দুইজন মাত্র ব্যক্তি দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচারের দাবী তুলেছিলেন। এর মধ্যে হুমায়ূন কবির ছিলেন তাদের একজন। তা আমরা গর্ব করে বলতে পারি। তার ভেতরে প্রচন্ড দেশপ্রেম ছিল। ১৯৭৫সালের ১৫আগস্টের পর যে কালো সময় গিয়েছিল, সে সময় হুমায়ূন কবির দেশপ্রেমের পরিচয় রেখেছিলেন। তিনি দেশপ্রেমিক, গণতান্ত্রিক ও একজন অসাম্প্রদায়িক ব্যক্তি ছিলেন।

তিনি আরও বলেন, ২০০১সালের নির্বাচনের পর হিন্দুধর্মের লোকজনের উপর হামলা হয়েছিল। যার নেতৃত্ব দেয় বিএনপির নেতারা। সে সময় আওয়ামীলীগের অনেক নেতা থাকলেও কেউ এগিয়ে আসেননি। তখন হুমায়ুন কবির দাঁড়িয়ে ছিলেন।

এমপি মোকতাদীর চৌধুরী আরও বলেন, অ্যাডভেকেট হুমায়ূন কবির ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উন্নয়নে কাজ করে গেছেন। গড়ে গেছে অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। হুমায়ূন কবির ছিলেন কাজের কাজী, কথার কাজী নয়। তার মতো বৈশিষ্ট্যপূর্ণ তেজস্বী মানুষ আমাদের সমাজে অভাব রয়েছে।
মোকতাদীর চৌধুরী এমপি প্রয়াত হুমায়ূন কবিরকে নিয়ে তার বক্তব্যে আরও স্মৃতিচারণ করেন।


ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র ও প্রয়াত হুমায়ূন কবিরের সহধর্মিণী মিসেস নায়ার কবিরের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি থেকে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রুহুল আমিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রেজাউল কবির, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার প্রমুখ। সভা উপস্থাপনা করে সাংবাদিক নজরুল ইসলাম শাহজাদা।

পরে প্র‍য়াত হুমায়ূন কবিরের রুহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন মুফতি কেফায়েতুল্লাহ নূর।

রাফি//–

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com