সরাইলে দুদলের সংঘর্ষে বৃদ্ধ নিহত,আহত ৩০

শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৯:২২ অপরাহ্ণ | 155 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেরার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের বুড্ডা গ্রামে শনিবার দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে শেখ শামসুল ইসলাম (৭০) নামের এক বৃদ্ধ ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে। তিনি গ্রামের শেখ মফিজ উদ্দিনের ছেলে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। পুলিশ শামসুল ইসলামের লাশ উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্ত সম্পন্ন করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, বুড্ডা গ্রামের শামসুল ইসলামের ছেলে রাকিব মিয়ার (৩৬) সাথে গ্রামের ইউপি সদস্য অলি আহাদের (৪০) দুই বছর ধরে বিরোধ চলে আসছে। ১৫-১৬ দিন আগে গ্রামের একটি বিরোধ নিস্পত্তির জন্য বুড্ডা গ্রামের কয়েকজন সালিসকারক বৈঠকে বসেন। ওই বৈঠকে রাকিব মিয়ার পক্ষের শামীম মিয়ার (৪২) সাথে আলি আহাদের বাকবিতণ্ডার ঘটনা ঘটে। কিছুক্ষণ পর রাকিব মিয়া শামীম মিয়ার পক্ষ নিয়ে অলি আহাদের সাথে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন।

এ ঘটনার জের ধরে গত শুক্রবার রাত ১১ টার দিকে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। গতকাল শনিবার সকাল আটটার দিকে উভয় পক্ষের লোকজন দা, বল্লম, ইটপাটকেল ও লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে প্রতিপক্ষের বল্লমের আঘাতে শামসুল ইসলাম গুরুতর আহত হন। তাঁকে উদ্ধার করে দুপুর ১২ টার দিকে উপজেলা ¯^াস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শামসুল আরেফিন তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। শামসুল আরেফিনের ভাষ্যমকে শামসুল ইসলাম সংঘর্ষেও সময় ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। তাঁর তল পেটে বল্লমের আঘারে চিহ্ন রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু ঘটেছে।
সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে শামসুল ইসলামের দুই ছেলে রাকিম মিয়া ও হাশেম মিয়া (৩৭), ছোট ভাই সরাজ মিয়া (৫০), ভাতিজা জাবেদ মিয়া (২৫), ফারুক মিয়া (৪০) ও আলাল মিয়াকে (৩৫) জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যরা বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা নিয়েছেন। সংঘর্ষ চলাকালে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ টি বসতবাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ ৩১ টি রাবার বুলেট ও ৫টি কাঁধানে গ্যাস ছুড়ে দুপুর ১২ টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষে শাসমুল ইসলামের নিহতের ঘটনায় পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

সরাইল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নূরুল হক বলেন,‘বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। গ্রামে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে শামসুল ইসলামের লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com