সরকারি নির্দেশনা না মেনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে অতিরিক্ত যাত্রী নিচ্ছে বাসগুলো

মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০ | ৭:৫৩ অপরাহ্ণ | 586 বার

সরকারি নির্দেশনা না মেনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে অতিরিক্ত যাত্রী নিচ্ছে বাসগুলো

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে গণপরিবহনে প্রতি দুই আসনে একজন যাত্রী বসবে। এই কারণে যাত্রী ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু ভাড়া বাড়ানোর পরও সরকারি নির্দেশনার বাইরে গিয়ে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহণ করছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে ঢাকাগামী বাস গুলো।


পবিত্র ঈদুল আযহার তৃতীয় দিনে নিজের গ্রামের গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে কর্মস্থল ঢাকায় ফিরতে রওয়ানা দেন মাহমুদুর রহমান। জেলা শহরের দক্ষিণ পৈরতলায় অন্যসব কোম্পানির বাসের আসন না পেয়ে তিশা পরিবহণের টিকেট কাটেন তিনি। তিশার ঢাকা মেট্রো-ব-১৫-৪৬৫২নং বাসের জন্য ভাড়া নেন ৩০০টাকা। বাসে উঠে নিজের আসন ৭ নম্বরে বসেন। ভেবে ছিলেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী ওই আসনে তিনি একাই বসবেন। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই তার পাশে বসি দেওয়া হলো আরেকজন যাত্রীকে।

মাহমুদুর রহমান বলেন, ঢাকা কর্মস্থলে যেকোন উপায়ে যেতে হবে। তাই বাধ্য হয়েই যাচ্ছি। পরিবহন কোম্পানির কাছে জিম্মি হয়ে যাচ্ছি। করোনার মহামারীতে এমনিতেই আতংকিত থাকি চলাফেরাতে। অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে পাশে আরেক যাত্রী বসিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মাহমুদুর রহমানের মত এই অভিযোগ অসংখ্য যাত্রী। এই বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার জনপ্রিয় ফেসবুক গ্রুপ গুলোর অন্যতম wishforbetterbrahmanbaria তে অসংখ্য ভুক্তভোগী পোস্ট দিয়েছেন। বিষয়টিতে প্রশাসন ও সাংবাদিকদের দৃষ্টি করেন এডমিন বিবর্ধন রায় ইমন।

এই বিষয়ে টিকেটের পেছনে লিখা তিশা গ্রুপের পৈরতলা কাউন্টারের নম্বরে যোগাযোগ করা হলে  তারা জানান, এই বিষয়ে বিস্তারিত জানেন ম্যানেজার। ম্যানেজারের নম্বরে কল দেওয়া হলেও রিসিভ করেনি।

শুধু তিশা নয়, নির্দেশনা মানছে না রয়েল, কাজী, ইকোনো, তিতাস, উত্তরা সহ অন্যান্য বাস সার্ভিসগুলোও।


এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পঙ্কজ বড়ুয়া বলেন, অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহণের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত অব্যাহত আছে। এই অভিযান চলবে। অতিরিক্ত যাত্রী নিলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

-রাফি/-

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com