আপডেট

x

‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষে আহ্বান করা বিশেষ অধিবেশন স্থগিত

শনিবার, ২১ মার্চ ২০২০ | ৯:৫০ অপরাহ্ণ | 89 বার

‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষে আহ্বান করা বিশেষ অধিবেশন স্থগিত

জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষে আহ্বান করা জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশন স্থগিত করা হয়েছে। করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জনস্বাস্থ্যের ঝুঁকির বিষয়টি বিবেচনা করে অধিবেশন স্থগিত করা হয়।

এর আগে সংসদ সদস্যদের বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, শিশুমেলা ও সাইকেল র‍্যালির কর্মসূচি স্থগিত করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে জাতীয় সংসদের পক্ষ থেকে বছরব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে রাষ্ট্রপতি মো.আবদুল হামিদ ২২ মার্চ সংসদের বিশেষ অধিবেশন আহ্বান করেন।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে ২২ ও ২৩ মার্চ এই অধিবেশন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কিন্তু বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে এই অধিবেশন স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

রাষ্ট্রপতির মো. আবদুল হামিদ শনিবার দুপুরে এ সংক্রান্ত ফাইলে স্বাক্ষর করেন বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন। বিকালে রাষ্ট্রপতির আদেশের বিষয়টি সংসদ সচিবালয় থেকে সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানানো হয়েছে।

এ দিকে বিএনপির সংসদীয় দলের পক্ষ থেকে জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশন স্থগিত চেয়ে স্পিকারকে লিখিতভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে। বিএনপির সংসদীয় দলের নেতা মো. হারুনুর রশীদ শনিবার সকালে এ সংক্রান্ত চিঠিটি স্পিকারের একান্ত সচিব কামাল বিলাহর কাছে হস্তান্তর করেন।

সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশীদ জানান, চিঠিতে বর্তমান সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরা হয়েছে। সেখানে অধিবেশন স্থগিত করার ব্যাখ্যা করে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্পিকারকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। তারপরও বিশেষ অধিবেশন চালানো হলে বিএনপির এমপিরা অধিবেশনে যোগদান থেকে বিরত থাকবে।

উল্লেখ্য, ২২ মার্চ সংসদের বিশেষ অধিবেশন শুরুর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সংসদ নেতা, স্পিকারসহ সংসদ সদস্যদের শ্রদ্ধা নিবেদনের কর্মসূচি নেয়া হয়। যা গত শুক্রবার স্থগিত করা হয়।

এরআগে ১৯ মার্চের শিশু মেলাসহ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন এবং ২৪ মার্চের সংসদ সদস্যদের সাইকেল র্যায়লির কর্মসূচি স্থগিত করা হয়। তবে এই সব কর্মসূচি পরবর্তীতে সুবিধাজনক সময়ে অনুষ্ঠিত হবে বলে সংশিষ্টরা জানিয়েছেন।

এ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল। বিশেষ অধিবেশনে ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীসহ বেশ কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তির বক্তব্য দেয়ার কথা থাকলেও করোনাভাইরাসের কারণে বিদেশিদের আপাতত আসা হচ্ছে না। এরপরও দু’দিনব্যাপী অধিবেশন চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছিল।

এছাড়া সিদ্ধান্ত হয়েছিল সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদসহ ৭৯ জন সংসদ সদস্য বঙ্গবন্ধুর ওপর আলোচনার।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com