আপডেট

x

মুজিববর্ষে ৯ দেশের অংশগ্রহণে আখাউড়ায় ম্যারাথন

বুধবার, ১৭ মার্চ ২০২১ | ১০:১৮ অপরাহ্ণ | 122 বার

মুজিববর্ষে ৯ দেশের অংশগ্রহণে আখাউড়ায় ম্যারাথন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী আজ। এ উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়ায় উপজেলায় অনুষ্ঠিত হয়েছে হাফ ম্যারাথন প্রতিযোগিতা। কুমিল্লাস্থ আখাউড়া ছাত্র কল্যাণ পরিষদ ‘আখাউড়া হাফ ম্যারাথন’ এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। বুধবার সকালে বাংলাদেশসহ নয়টি দেশের অংশগ্রহণে এই প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন পৌর মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল। এই ম্যারারাথন প্রতিযোগিতা কেন্দ্র করে আখাউড়ায় সর্বত্র উৎসব আমেজ সৃষ্টি হয়েছে। এতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নারী পুরুষ সহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ অংশ গ্রহন করেন।


এলাকাবাসী ও আয়োজকেরা জানান, প্রথমবারের মতো আখাউড়া উপজেলা ম্যারাথন প্রতিযোগিতায় এমন চিত্র দেখেছে উপজেলা বাসী। ম্যারাথনে অংশ নেয়া পাঁচ শতাধিক প্রতিযোগি দুই দলে বিভক্ত হয়ে ১০ এবং ২১ কিলোমিটার হাফ ম্যারাথনে অংশ গ্রহণ করেন। প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণকারীরা জানান সুস্থ দেহ এবং সবল মনের জন্যে ম্যারাথনের কোনো বিকল্প নেই।

webnewsdesign.com

আয়োজককারী সংগঠন কুমিল্লাস্থ আখাউড়া ছাত্র কল্যাণ পরিষদের সভাপতি সুকান্ত চক্রবর্তী জানান, বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, নেপাল, ভূটান, জাপান, চীন, কেনিয়া, মালদ্বীপ ও থাইল্যান্ডের প্রতিযোগীরা ম্যারাথনে অংশ নিয়েছেন। ২১.১ কিলোমিটার ক্যাটাগরিতে আখাউড়া উপজেলা পরিষদ থেকে শুরু হয়ে রাধানাগর, মোগড়া বাজার, কর্নেল বাজার, আদমপুর, বাউতলা ও আখাউড়া চেকপোস্ট হয়ে উপজেলা পরিষদ পর্যন্ত এবং ১০ কিলোমিটার ক্যাটাগরিতে আখাউড়া উপজেলা পরিষদ থেকে চেকপোস্ট হয়ে আবার উপজেলা পরিষদ পর্যন্ত দৌড়ে অংশ নেন প্রতিযোগীরা।

ম্যারাথনে দৌড়ে অংশ নেয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী আশফায়ান জানান, ম্যারাথনে অংশ নেয়া ভালো একটি অভিজ্ঞতা হয়েছে। তরুণ থেকে শুরু করে সব বয়সী মানুষ অংশগ্রহণ করেছে ম্যারাথনে। এ ধরনের প্রতিযোগিতা যদি নিয়মিত করা হয়, বিশেষ করে জেলা পর্যায়ে তাহলে অনেক ভালো হবে। এতে করে মানুষের অভ্যাস গড়ে উঠবে। যেটা আমাদের দেহের জন্য খুবই প্রয়োজন।

ম্যারাথন অংশগ্রহণকারী ঢাকা থেকে আসা
গৃহিণী ঐশী পাল জানান, ম্যারাথন শারীরিক দিক সহ সবদিক দিয়ে ভালো রাখে। সারা বাংলাদেশের অনেকে অংশগ্রহণ করেছে। সম্মিলিত এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পেরে বেশ ভালো লাগছে।

ম্যারাথনে অংশ গ্রহনকারী ঢাকা থেকে আসা ডিজাইনার জিয়া মোসাদ্দেক জানান,আমি এখানে না আসলে ঘরে বসে থাকতাম। কিন্তু আমি এখন দৌড়াচ্ছি। খুব ভালো লাগছে। এটা আমার জন্য বিশাল একটা পাওয়া। আমি চাই সবাই আমার মত এসে দৌড়াক।তাহলে মেডিকেল চিকিৎসা অনেক কিছু সমাধান হয়ে যাবে। ডাক্তার কাছে আর যাওয়া লাগবেনা।


ম্যারাথনে ১০ কিলোমিটার দৌড়ে বিজয়ী সিলেট থেকে আসা নাসিমা বেগম জানান,ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই সন্তানের জননী। তিনি ইতোপূর্ব সিলেটের মাটিতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী আয়োজিত ম্যারাথনের একটি পর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন। আজ আখাউড়ায় হাফ ম্যারাথন প্রতিযোগীতায় তিনি নারীদের ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। এতে তিনি বেশ উচ্ছ্বাসিত। তিনি বলেন,”সুস্থ দেহ, সুন্দর মনের জন্য ম্যারাথন এর কোন বিকল্প নেই। ম্যারাথনের আয়োজন করার জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

ম্যারাথনের আয়োজনকারী, কুমিল্লাস্থ আখাউড়া ছাত্র কল্যান পরিষদের সভাপতি সুশান্ত চক্রবর্তী জানান, মাদকের কুফল আর সুস্থ দেহের সবল মানুষ তৈরী করার জন্যে জাতির জনকের জন্মশত বার্ষিকীতে তারা এই আয়োজন করেছেন। ভবিষ্যতে এধরনের আয়োজন আরো করার পরিকল্পনা আছে তাদের। তিনি আয়োজন সফল হওয়ার জন্য অংশ গ্রহন কারী সহ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

ম্যারাথন আয়োজন সম্পর্কে আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নূর-এ আলম জানান, জাতির জনকের জন্মদিনে প্রথমবারের মতো এই আয়োজন নি:সন্দেহে অনেক ভালো উদ্যোগ। ভবিষ্যতে এ ধরনের আয়োজন যেন আরো বেশি করাযায় সে প্রচেষ্টা গ্রহণ করা হবে।

ম্যারাথন প্রতিযোগীতায় ২০ বছর বয়সি যুবক থেকে শুরু করে ৬১ বছর বয়সিরাও অংশ নেন। পরে বিজয়দের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

এর আগে ভোরে ম্যারথন প্রতিযোগীতার উদ্বোধন করেন আখাউড়া পৌর সভার মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নূর-এ আলম। এসময় কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া কলেজের সহকারি অধ্যাপক মো. মশিউর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক মো. মনির হোসেন বাবুল, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মো. আব্দুল মমিন বাবুল সহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com