আপডেট

x

মহাসড়কে সরাইল বিএনপির বিক্ষোভ, আহবায়ক-সদস্য সচিবকে অবাঞ্চিত ঘোষণা

মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১ | ৯:১৩ অপরাহ্ণ | 104 বার

মহাসড়কে সরাইল বিএনপির বিক্ষোভ, আহবায়ক-সদস্য সচিবকে অবাঞ্চিত ঘোষণা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে উপজেলা বিএনপির একাংশ। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সরাইল বিশ্বরোড মোড় এলাকায় এ বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ হয়েছে।


সমাবেশে বিএনপি’র উপজেলা কমিটির আহবায়ক ও সদস্য সচিবকে উপজেলা সদরে অবাঞ্চিত ঘোষণা করেন তারা।

webnewsdesign.com

বিক্ষোভ মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন, বর্তমান আহবায়ক কমিটির সদস্য জহির উদ্দিন, মশিউর রহমান, উপজেলা যুবদলের সভাপতি নাজমুল আলম খন্দকার, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সৈয়দ ইসমাইল মিয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল জব্বার প্রমুখ।

মিছিল সমাবেশে কয়েকশ নেকাকর্মী উপস্থিত ছিল। তবে কমিটি বাতিলের দাবীতে সরাইল বিএনপি’র একাংশের সকল আন্দোলন সংগ্রামের সাথে একাত্বতা ঘোষণা করেছেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও বর্তমান আহবায়ক কমিটির সদস্য আক্তার হোসেন।

দুপুর ১২ টার দিকে মিছিলটি উপজেলার কুট্টাপাড়া শেখ রাসেল স্টেডিয়ামে জড়ো হয়ে সরাইল বিশ্বরোড মোড় গোল চত্বরে সমাবেশ করে। সেখানে জেলা বিএনপির আহবায়ক জিল্লুর রহমানের কুশপুত্তলিকা দাহ করে বিক্ষোভকারীরা। মিছিলটি ঘুরে এসে ফের মহাসড়কের কুট্টাপাড়া এলাকায় মহাসড়কের ওপর সমাবেশ করে। এতে মহাসড়কের দুপাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

মিছিলে নেতা কর্মীরা জেলা বিএনপির জেলা কমিটির আহবায়ক, উপজেলা কমিটির আহবায়ক ও সদস্য সচিবের বিরুদ্ধে নানা শ্লোগান দেন। তারা উপজেলা কমিটির আহবায়ক ও সদস্য সচিবকে উপজেলা সদরে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে। তারা দ্রুত এ কমিটি বাতিলের দাবি জানান।


গত ২৬ ফেব্রুয়ারি উপজেলা বিএনপির ৩১ সদস্যের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করেছেন জেলা বিএনপি। কমিটিতে আনিছুল ইসলাম ঠাকুরকে আহবায়ক ও নুরুজ্জামান লস্করকে সদস্য সচিব করা হয়। বর্তমান আহবায়ক কমিটি গত ২ মার্চ আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছিল। পাল্টা কর্মসূচির ঘোষণা দেয় আক্তার হোসেন ও আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বাধীন গ্রুপ। সংঘাতের শঙ্কায় ওই কর্মসূচি বন্ধ করে দেন স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন।

আনোয়ার হোসেন বলেন,‘ দলীয় আন্দোলন করতে গিয়ে ৮টি মামলার আসামী আমি। ১/১১ তে কারাবরণ করেছি। দলের সভানেত্রী বেগম খালেদা জিয়া গ্রেপ্তার হওয়ার পর বর্তমান আহবায়ক ২০১৯ সালের ১৯ মার্চ লিখিতভাবে দল থেকে পদত্যাগ করেন। এ ছাড়া সদস্য সচিব ২০১৯ সালের ১০ ফেব্রুয়ারিতে দল থেকে পদত্যাগ করেন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। দলের দূর্দিনে তারা দু’জনই আ’লীগের সাথে আতাত করে গায়েব হয়ে গিয়েছিলেন। আমরা তাদের এ কমিটি মানি না। কখনো মানব না। তাঁদেরকে মাঠে নামতে দেওয়া হবে না।’

নবগঠিত আহবায়ক কমিটির আনিছুল ইসলাম ঠাকুর বলেন, ‘আমি পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলাম। দল থেকে নয়। শুধু পদ থেকে। যারা আন্দোলন করছে তারা আবেগে এসব করছে , পরে সব ঠিক হয়ে যাবে।আমরা আহবায়ক কমিটির ২৬ জনকে নিয়ে গতকাল সভা করেছি। কমিটির অধিকাংশ লোক আমাদের সঙ্গে আছেন। সকলের সাথে পরামর্শ করে অচিরেই আমরা মাঠে নামব ।’

 

 

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com