আপডেট

x

ভোট কেন্দ্রে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও অস্ত্রবাজকে ঢুকতে দেওয়া হবে না: নায়ার-মামুন

শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ১০:২১ অপরাহ্ণ | 174 বার

ভোট কেন্দ্রে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও অস্ত্রবাজকে ঢুকতে দেওয়া হবে না: নায়ার-মামুন

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনের প্রচারণার শেষ দিন ছিল আজ। শেষ দিনে শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে জেলা শহরের বঙ্গবন্ধু স্কয়ার এলাকার মুক্তমঞ্চে আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মিসেস নায়ার কবিরের পক্ষে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার শেষে এক পথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।


এই পথসভায় আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মিসেস নায়ার কবির ও জেলা নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আল-মামুন সরকার বলেছেন, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর নির্বাচনের কোন ভোট কেন্দ্রে চোর-ছিনতাইকারী, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও অস্ত্রবাজকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। কারণ তারা সুন্দর সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে পারে। আপনারা ককটেলবাজ, টেন্ডারবাজদের প্রতিরোধ করতে সজাগ দৃষ্টি রাখবেন। আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের সকল নেতাকর্মীকে ভোট কেন্দ্রের নিরাপত্তা রক্ষায় ও ভোটারদের নির্বিঘ্নে ভোট প্রদানের সুযোগ করে দেওয়ার আহ্বান জানান।

webnewsdesign.com

এসময় নায়ার-মামুন আরো বলেন, আওয়ামীলীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকলকে যার যার এলাকার ভোটারদের কাছে প্রত্যেকেই নায়ার কবির হয়ে ভোট চাইবেন। তাহলেই নৌকা প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চিত হবে ইনশাল্লাহ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার মার্কা নৌকা মার্কা, স্বাধীনতার মার্কা নৌকা মার্কা ও উন্নয়নের মার্কা নৌকা মার্কা। সুতরাং পৌর এলাকার উন্নয়নের জন্য নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে নায়ার কবিরকে বিজয়ী করতে হবে। যদি কোন চাঁদাবাজ, ছিনতাইকারী, লুন্ঠনকারী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে ঐতিহ্যবাহী এ পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত করেন তাহলে নিরাপদ ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে আবারো সন্ত্রাস চাঁদাবাজ ও ছিনতাইকারীদের অভয়ারণ্য হিসেবে দেখতে হবে। সুতরাং ভোট আপনাদের, সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনাদেরই।

নায়ার কবিরের বিগত পাঁচ বছরের উন্নয়নের কথা তুলে ধরে বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার কোন মানুষই নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়নি। এই শহরে কোন সন্ত্রাসী ও ছিনতাইকারীর ঠাঁই হয়নি। আগামী পৌর নির্বাচনে পুনরায় নৌকা প্রতীকের শেখ হাসিনা মনোনীত মেয়র প্রার্থী মিসেস নায়ার কবিরকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করুন।

এ সময় বিগত ২৮ দিন নৌকার পক্ষে প্রচার-প্রচারণা চালানোয় সকল স্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং নির্বাচনের দিন কেন্দ্রসমূহতে অত্যন্দ্র প্রহরী হিসাবে দায়িত্ব পালন করার জন্য আহবান জানান।


ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মো. মনির হোসেনের সঞ্চালনায় সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন বিজয়নগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাছিমা লুৎফুর (মুকাই আলী), জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি তাজ মো. ইয়াছিন, মুজিবুর রহমান বাবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, গোলাম মহিউদ্দিন খান খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহবুবুল আলম খোকন, দপ্তর সম্পাদক মো. তানজিল আহমেদ, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কালাম ভুইয়া, সাধারন সম্পাদক এম এ এইচ মাহবুব আলম, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা অ্যাডভোকেট তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত, শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ-সম্পাদক আলামিনুল হক আলামিন, জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট শাহনুর ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব লোকমান হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এম সাইদুজ্জামান আরিফ, জেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল, সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভন, সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আলী আজম, সাধারন সম্পাদক জসিম উদ্দিন রানা, বিজয়নগর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী রাসেল খান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এনামুল হক খোকন সহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ প্রমুখ।

এদিকে, সর্বশেষ নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণার অংশ হিসেবে অনুষ্ঠিত উক্ত পথসভায় বিকেল ৩টা থেকে পৌর এলাকার প্রতিটি ওয়ার্ড ও পাড়া-মহল্লা থেকে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে ঢাকঢোল বাজিয়ে নেচে গেয়ে মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে আসতে থাকেন। এতে অংশগ্রহণ করেন নৌকা মার্কার কর্মী সমর্থক ও সাধারণ ভোটাররা। বিকেল সোয়া ৪টা নাগাদ পৌর মুক্তমঞ্চ মাঠ ও বঙ্গবন্ধু স্কয়ার এলাকার চারপাশ লোকে লোকান্তরিত হয়ে যায়। এসময় নৌকা প্রতীকের শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে সমাবেশ প্রাঙ্গণ।

 

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com