আপডেট

x

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মার্কেটগুলোতে লুকোচুরি খেলা, সেহেরীর পর থেকেই ক্রেতার ঢল

শুক্রবার, ১৫ মে ২০২০ | ৫:২৬ অপরাহ্ণ | 2202 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মার্কেটগুলোতে লুকোচুরি খেলা, সেহেরীর পর থেকেই ক্রেতার ঢল

সামাজিক দূরুত্ব বজায় রাখার শর্তে ঈদে কেনাকাটার সুবিধায় সরকারীভাবে সীমিত আকারে শপিং মল খোলার নির্দেশ থাকলেও সেই নির্দেশানা মানা হচ্ছে না ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়।


সরকারের সিদ্ধান্তের পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া চেম্বার ও ব্যবসায়ী নেতারা জেলা প্রশাসকের সাথে সভায় মিলিত হয়ে মার্কেট খোলা না রাখার সিদ্ধান্তের কথা জানায়। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে শহরের বিভিন্ন বিপনী বিতান ও মার্কেটগুলোতে ক্রেতাদের ঠাসাঠাসি করেই চলছে কেনাবেচা।

সেহেরীর পর থেকেই মার্কেটে যেমন দোকানপাট খুলতে থাকে ব্যবসায়ীরা তেমনি ঢল নামে নারীপুরুষ ক্রেতার, এতে লুকোচুরি করে চলে ব্যবসা।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটগণের নেতৃত্বে প্রতিদিন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা ও ব্যবসা বানিজ্য পরিচালনা করার জন্য প্রচারণা ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হলেও ব্যবসায়ীরা আমলেই নিচ্ছেন না।

এদিকে জেলা প্রশাসক হায়াত উদ-দৌলা খাঁন লকডাউন আইন মেনে চলতে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করতে বারবার হাট বাজারে নিজে উপস্থিত হয়ে ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সচেতনতা কার্যক্রম পরিচারনা করেছেন। কিন্তু এতোকিছুর পরও আইন অমান্য করার পর করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঝুঁকি বাড়ছে।

সকাল দশটার পরিবর্তে সেহেরীর পরই প্রতিদিন ভোর ৫টা থেকে বিকেল পর্যন্ত বিভিন্ন কৌশলে দোকান বাহির থেকে তালা দিয়ে ভেতরে মানুষের জটলা রেখে কেনাবেচা করছে। এভাবেই চলছে শহরের দোকান গুলোতে লুকোচুরির খেলা খেলে ঈদের কেনাবেচা।


শুক্রবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রশান্ত বৈদ্য ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট উম্মে ইমামা বানীন এর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত সেনাবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সাথে নিয়ে কোর্ট রোড, নিউ মার্কেট, সিটি সেন্টারসহ বিভিন্ন মার্কেটে অভিযান চালায়। এ সময় স্বাস্থ্যবিধি না মানায় বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে আর্থিক জরিমানা করা হয়।

রাফি/-

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com