জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

দিন

ঘন্টা

মিনিট

সেকেন্ড

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফুলের দাম দ্বিগুণ করে দিল বসন্ত ও ভালবাসা দিবস

বৃহস্পতিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১০:৪৮ পিএম | 397 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফুলের দাম দ্বিগুণ করে দিল বসন্ত ও ভালবাসা দিবস

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বেড়েছে ফুলের দাম। পহেলা ফাগুন ও ১৪ফেব্রুয়ারী বিশ্ব ভালবাসা দিবসকে কেন্দ্র করে ফুলের ব্যাপক চাহিদা থাকায় হঠাৎ বেড়েছে দাম। বিক্রেতারা বলছে, উর্ধ্বে মূল্যে ক্রয় ও ফুলের বিপুল চাহিদা থাকায় দাম বেড়ে প্রায় দ্বিগুন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা রেজিস্ট্রার অফিসের সামনে বসে শহরের অধিকাংশ অস্থায়ী ফুলের দোকান।

সেখানে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এমনিতে সপ্তাহের প্রতি শুক্রবার ফুলের চাহিদা বেশি থাকে। এছাড়া বছরের বিভিন্ন দিবসেও ফুলের চাহিদা দেশ জুড়ে থাকে। পহেলা ফাল্গুন বসন্ত ও ১৪ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ব ভালবাসা দিবসে ফুলের বিপুল চাহিদা থাকে। এবছর ১৩ ফেব্রুয়ারী বসন্ত বরণ ও ১৪ ফেব্রুয়ারী বিশ্ব ভালবাসা দিবস পাশাপাশি থাকায় এর চাহিদা দ্বিগুনের বেশি হয়েছে। দাম বেশি হলেও বসন্ত বরণের উৎসব এবং ভালোবাসার কাছে যে বাড়তি দাম কোনো বিষয়ই নয়, তারই প্রমাণ মেলে ফুলের দোকান গুলো ঘুরে।

জেলা রেজিস্ট্রার অফিসের সামনের ভাই ভাই ফ্লাওয়ার সেন্টারের মালিক মোঃ রায়হান জানান, ফুলের চাহিদা বেশি থাকায় ঢাকায় একটি গোলাপ ক্রয় করতে হয়েছে ৮ থেকে ১০টাকায়। আগে যা কিনতে হতো ৩ থেকে ৪টাকা করে। এই দাম বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত এই দাম থাকলেও রাতে আরও দাম বাড়বে।

তিশা এন্টারপ্রাইজ নামের ফুলের দোকানের মালিক মোঃ মাসুম মিয়া জানান, ১৩ ফেব্রুয়ারী পহেলা বসন্ত, ১৪ ফেব্রুয়ারী বিশ্ব ভালবাসা দিবস ও একই দিন সপ্তাহে শুক্রবার। আমাদের কাছে যে ফুল আছে তা দিয়ে চাহিদা মিটাতে পারব কিনা সন্দেহ আছে। তাছাড়া ঢাকায় পাইকারি দোকানেই দ্বিগুণ দামে ফুল কিনে আনতে হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, যে গোলাপ আমরা ১০টাকায় বিক্রয় করেছি এখন তা ২০টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। এছাড়াও গ্যালাক্সি প্রতি স্টিক ২০টাকা, রজনীগন্ধা প্রতি স্টিক ১০টাকা, ঝাড়পাতা প্রতিটি ৩০টাকা ও গাধা ফুলের লড় ২০টাকায় বিক্রি করছি। ফুলের তোড়া সর্বনিম্ন ১০০টাকা থেকে ১৫০০টাকা পর্যন্ত বিক্রি করা হচ্ছে। যা আগে এর অর্ধেক দামে বিক্রয় করেছি। রাত অবধি ফুলের দাম আরও বাড়তে পারে।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com