নির্বাচনের কারচুপি ১৯৭৩ সাল থেকে শুরু হয়েছিল: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বুলু

শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩ | ১০:৪৫ অপরাহ্ণ | 35 বার

নির্বাচনের কারচুপি ১৯৭৩ সাল থেকে শুরু হয়েছিল: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বুলু

বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু বলেছেন, এই সরকার গণতান্ত্রিক সরকার নয়। ২০১৮ সালের ৩০ অক্টোবর রাতের আঁধারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং আওয়ামী যুবলীগের মাধ্যমে ব্যালট বাক্স ভর্তি করে ক্ষমতায় এসেছিল। বাংলাদেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা ৫০ বছরেও ঘটে নাই। আরেকটি ঘটনা ঘটেছিল ১৯৭৩ সালের নির্বাচনে। শেখ মুজিবুর রহমান তখন ক্ষমতায়, কুমিল্লার দাউদকান্দিতে ইঞ্জিনিয়ার রশিদ সাহেব বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছিলেন এবং খন্দকার মোশতাক বিপুল ভোটে পরাজিত হয়েছিলেন। সেদিন হেলিকপ্টারে ব্যালট বাক্স ঢাকায় এনে মোশতাককে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছিল। যিনি পরবর্তীতে শেখ মুজিবের লাশ সিড়িতে ফেলে রেখে রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন। এই নির্বাচনের কারচুপি ১৯৭৩ সাল থেকে শুরু হয়েছিল।


আজ শনিবার (১১ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের জেলা পরিষদ মার্কেটের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ ১০দফা দাবিতে জেলা বিএনপি আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই কথা বলেন।

webnewsdesign.com

এসময় বরকত উল্লাহ বুলু বলেন, আজকে মানুষ ভোট কেন্দ্রে যায় না। আগে ভোটের আমেজ ছিল, উৎসব ছিল। এই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যে নেক্কারজনক ঘটনা ঘটেছে, তা পৃথিবীর গণতন্ত্রের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লিখা থাকবে। বিএনপি থেকে পদত্যাগ করা উকিল আব্দুস সাত্তার ভূইয়া নামে এক ব্যক্তিকে আওয়ামী লীগের লোকেরা পাহারা দিয়ে জয়লাভ করিয়েছে। পত্রিকায় দেখলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সম্মানিত বিজ্ঞ আইনজীবী ছিলেন সিরাজুল হক সাহেব, যাবে বাংলাদেশের মানুষ শ্রদ্ধার চোখে দেখতো।সেই সিরাজুল হক সাহেবের ছেলে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক মাইক্রোফোন ধরে রেখেছেন, আর উকিল আব্দুস সাত্তার বক্তব্য রাখছেন। এর চেয়ে দেউলিয়া সরকার বাংলাদেশে হতে পারে না।

তিনি বলেন, আজকে বাংলাদেশ থেকে লুন্ঠন করে ১৪ লক্ষ কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছেন। তারা কানাডায় বেগম পাড়া গড়েছেন। আমার অত্যন্ত লজ্জা হয়। আমাদের ছেলে মেয়েরা যারা মেধাবী। তারা কানাডায় গিয়ে লেখা পড়া করতো, মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি গুলোতে তারা ভাল চাকরি করতো৷ অনেকে ব্যবসা করেছেন, বাড়ি ঘর করেছেন। কিন্তু এখন কানাডায় একটি সংগঠন হয়েছে, যেন কানাডায় আওয়ামী লীগের চোররা আর যেন ঘরবাড়ি না কিনতে পারেন। কানাডা সরকার আইন করেছে বাংলাদেশ থেকে টাকা নিয়ে যেন কেউ আর বাড়িঘর না করতে পারে। এর চেয়ে আর লজ্জাজনক কিছু হতে পারে না।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপির আহবায়ক জিল্লুর রহমানের সভাপতিত্বে এসময় বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।


মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com