নিজের পদত্যাগ করা আসনে আবার এমপি হলেন উকিল সাত্তার ভূইয়া

বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১০:২০ অপরাহ্ণ |

নিজের পদত্যাগ করা আসনে আবার এমপি হলেন উকিল সাত্তার ভূইয়া
ফাইল ছবি
Spread the love

আবারও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (আশুগঞ্জ-সরাইল) সংসদীয় আসনে এমপি নির্বাচিত হলেন বহুল আলোচিত বিএনপি থেকে বহিষ্কার হওয়া উকিল আব্দুস সাত্তার ভূইয়া। বুধবার (০১ ফেব্রুয়ারি) রাতে এই নির্বাচনী আসনে উপ-নির্বাচনে ভোট গননা শেষে এই ফলাফল জানা যায়।

রাত সাড়ে ৯টার দিকে জেলা প্রশাসকের হল রুমে জেলা প্রশাসক ও উপ-নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহগীর আলম এই ফলাফল ঘোষণা করেন।

webnewsdesign.com

সূত্র মতে, কলারছড়া প্রতীকে ৪৪ হাজার ৯১৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি জাতীয় পার্টির আব্দুল হামিদ পেয়েছেন ৯হাজার ৬৩৫ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির বহিস্কৃত নেতা আবু আসিফ আহমেদ পেয়েছেন ৩ হাজার ২৬৯ ভোট, জাকেরপার্টির জহিরুল ইসলাম পেয়েছেন ১হাজার ৮১৮ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জিয়াউল হক মৃধা পেয়েছেন ৪৮৪ ভোট।

উকিল আব্দুস সাত্তার ভূইয়া ১৯৭৯ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে তৎকালীন কুমিল্লা-২ আসনে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরবর্তী তিনি বিএনপিতে যোগদান করলে ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে দুইবার এমপি নির্বাচিত হন। ২০০১ সালের নির্বাচনে জোটকে আসনটি ছেড়ে দিলে টেকনোক্রেট কোটায় তিনি আইন ও ভূমি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেছেন। ২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসন থেকে বিএনপির টিকেটে এমপি নির্বাচিত হন। কিন্তু দলীয় সিদ্ধান্তে গত ১১ ডিসেম্বর সংসদ সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করেন।

এই নির্বাচনে ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন। এরা হলেন- বিএনপির বহিস্কৃত ৫ বারের সাবেক এমপি আব্দুস সাত্তার ভূইয়া, জাতীয় পার্টির প্রার্থী আব্দুল হামিদ ভাষানী, সাবেক এমপি জিয়াউল হক মৃধা, জাকের পার্টির জহিরুল ইসলাম জুয়েল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আসিফ আহমেদ। এরমধ্যে জিয়াউল হক মৃধা প্রতীক বরাদ্দের পর বিবৃতি দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। এছাড়া এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ অংশগ্রহণ না করলেও বিএনপির সাবেক এমপি উকিল আব্দুস সাত্তার ভূইয়া সমর্থক গোষ্ঠির ব্যানারের আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা, এমপিরা, জেলা ও উপজেলার নেতারা আব্দুস সাত্তার ভূইয়ার পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছে।

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, সরাইল ও আশুগঞ্জ দুই উপজেলা নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসন। সরাইলে ৯টি ও আশুগঞ্জে ৮টি  ইউনিয়ন। মোট ১৭ ইউনিয়নের ১৩২টি কেন্দ্রে একসঙ্গে শুরু হবে ভোট। দুই উপজেলায় মোট ভোটার ৩ লাখ ৭৩হাজার ৩১৯ জন।

এরমধ্যে সরাইলের ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ৮৪টি। আর আশুগঞ্জে ৪৮টি। প্রত্যেক ইউনিয়নে একজন করে দুই উপজেলায় দায়িত্ব পালন করছেন ১৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। দু’জন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাঠে রয়েছেন, তারা সরাইল আর আশুগঞ্জ থাকবেন।

উল্লেখ্য, ২০১৮ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির দলীয় প্রার্থী আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া বিজয়ী হয়েছিলেন। গত ১১ ডিসেম্বর আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া জাতীয় সংসদ থেকে পদত্যাগ করায় আসনটি শূন্য হয়। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি এ আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আবারও অংশ নিতে যাচ্ছেন বিএনপি থেকে বহিষ্কার করা উকিল আব্দুস সাত্তার ভূইয়া। তিনি এই আসনে ৫ বার এমপি ছিলেন।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com