আপডেট

x

চাঁদা না পেয়ে ভবনের গেটে তালা, পুলিশী হস্তক্ষেপে ১০ পরিবারের সদস্য উদ্ধার (ভিডিও)

মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর ২০২০ | ৯:০৯ অপরাহ্ণ | 185 বার

সাত লাখ টাকা চাঁদা না দেয়ায় এক ব্যক্তিকে ঘরের তালা বদ্ধ করে রেখেছে তিন দুবৃর্ত্ত। পুলিশ মঙ্গলবার বিকেলে তালা ভেঙ্গে পরিবারের ১০টি পরিবারের অর্ধশত সদস্যকে উদ্ধার করেছে। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে শহরের দক্ষিণ মৌড়াইলে।


খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার গোসাইপুর গ্রামের মৃত রহিস মিয়ার পুত্র রবিউল আউয়াল দীর্ঘ দিন ধরে প্রবাসে জীবন যাপন করে। বর্তমানে দক্ষিণ মৌড়াইলের বাসা নং-৭৩৭/২ তে জায়গা ক্রয় করে বহুতল বিশিষ্ট ভবন নির্মান করেন। ভবন নির্মাণ কালে নির্মানকারী ঠিকাদার রনি শিকদার (৪০) কাজ সম্পাদন করেন। এরপর তার কাছ থেকে সকল দেনা পাওনা বুঝে নেয়। পরবর্তীতে বাড়তি আরো ৫০ হাজার টাকা আদায় করে। কিছুদিন পর রনির সহযোগী রাসেল মিয়া, আব্দুল্লাহ মিয়ার নেতৃত্বে ৪/৫জন আরো ১৫ হাজার টাকা বুঝে নেয়। সব মিলিয়ে ১৯লাখ ৫৫ হাজার টাকা বুঝে নিয়েছে বলে লিখিত দেয়। এর কিছুদিন পরেই অভিযুক্তরা আরো ৭ লাখ টাকা দিতে হবে বলে অন্যায় ভাবে দাবী করে। চাঁদাবাজদের দাবীমত উল্লেখিত টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে আসামীরা রবিউল আওয়ালকে মারধর করে। এক পর্যায়ে ভবনটির নিচে তালা লাগিয়ে ভবনের ১০টি পরিবারকে অবরুদ্ধ করে চলে যায়। এ ঘটনায় ভবনের বাসিন্দারা বাসা থেকে বের হতে না পেরে আতংকগ্রস্থ হয়ে পড়ে। পরে সদর থানা পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ভবনটির ১০টি ইউনিটের অন্তত অর্ধশত বাসিন্দাকে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধার করে।

webnewsdesign.com

বাড়ির তালা ভেঙে উদ্ধার করতে আসা সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) আব্দুল মুত্তালিব জানান, এ ব্যাপারে সদর থানায় একটি এজাহার দেয়া হয়েছে। আমরা এসে দেখেছি বাড়িটি তালা দেওয়া। স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদে জানা আমাদের জানায়, এই ভবনের কাজ করা রনি তালা দিয়েছে। এই ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com