কসবায় বিয়ে বাড়ির গেইটে যৌতুক ও নারী নির্যাতন বিরোধী কবিতা পাঠ

শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১ | ৯:৩৩ অপরাহ্ণ | 240 বার

কসবায় বিয়ে বাড়ির গেইটে যৌতুক ও নারী নির্যাতন বিরোধী কবিতা পাঠ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় এক বিয়ের অনুষ্ঠানে ব্যতিক্রমী সচেতনতামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে উপস্থিত অতিথিদের মাঝে চমক তৈরি করলেন দি সোস্যাল হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন অব গুড়িয়ারুপ নামে একটি সামাজিক সংগঠনের সদস্যরা।


শুক্রবার (২২ ডিসেম্বর) দুপুরে সংগঠনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফ্রান্স প্রবাসী মাসুম সরকারের বিয়েতে কনের বাড়ীর গেইটে দাড়িয়ে বর পক্ষ ও কনে পক্ষের লোকজন যৌতুক বিরোধী ও নারী নির্যাতন বিরোধী কবিতা পাঠ সহ বিভিন্ন সচেতন কার্যক্রমের মাধ্যমে বিয়ের আনন্দ উদযাপন করেন। এসময় উপস্থিত অতিথিবৃন্দ করতালির মাধ্যমে তাদের এই কার্যক্রমকে অভিনন্দন জানিয়ে সহমত প্রকাশ করেন।

webnewsdesign.com

জানা যায়, শুক্রবার দুপুরে উপজেলার গুড়িয়ারুপ গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ফুল মিয়া সরকারের ফ্রান্স প্রবাসী ছেলে সামাজিক ও সেবামুলক সংগঠন দি সোস্যাল হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মাসুম সরকারের সাথে কুটি গ্রামের আবদুল ওয়াহাব মিয়ার মেয়ে শরীফা আক্তারের বিয়ের দিন ধার্য করা হয়।বিয়েতে সংগঠনের সকল সদস্যদের নিমন্ত্রন করা হয়। সংগঠনের সভাপতির নেতৃত্বে সকল সদস্যগন পরিকল্পনা করেন সংগঠনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মাসুম সরকারের বিয়েতে কনের বাড়ীতে গেইটে দাড়িয়ে ব্যতিক্রমী যৌতুক বিরোধী ও নারী নির্যাতন বিরোধী কার্যক্রমের মাধ্যমে সচেতনতামুলক কাজ শুরু করবেন।সেই পরিকল্পনা কনের বাড়িতেও জানিয়ে দেয়া হয়। দুই পক্ষের উপস্থিতিতে চলে নারী নির্যাতন ও যৌতুক বিরোধী কবিতা পাঠ সহ বিভিন্ন কার্যক্রম। কনে পক্ষে যৌতুক বিরোধী কবিতা পাঠ করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সাবেরা সোবহান উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর শিক্ষার্থী কনের ছোট বোন তাহসিনা আক্তার সাউদা ও বর পক্ষে নারী নির্যাতন বিরোধী কবিতা পাঠ করেন বরের ছোট ভাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারী কলেজের শিক্ষার্থী ও সংগঠনের সদস্য আরমান হোসেন অমি। এসময় দুই পক্ষের লোকজন করতালী দিয়ে তাদের এই সচেতন কার্যক্রমে উৎসাহ যোগান।

দি সোস্যাল হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন অব গুড়িয়ারুপ’র সভাপতি কাজী মোশাহেদ উল্লাহ বলেন, মানুষের মাঝে যৌতুক বিরোধী ও নারী নির্যাতন বিরোধী সচেতনতা তৈরি করতে হলে বিয়ে বাড়ীই হচ্ছে সবচেয়ে উপযুক্ত স্থান। প্রথমে এখান থেকে মানুষের মাঝে সচেতনতা শুরু করতে পারলে একদিন সামাজিক ভাবে এর কার্যক্রম বৃদ্ধি পাবে। সাধারনত বিয়ের আসরেই যৌতুকের আদান প্রদানের বিষয়ে আলোচনা হয়। তাই আমরা বিয়ে বাড়ি থেকেই সংগঠনের পক্ষ থেকে এই সকল কার্যক্রমের বিরুদ্ধে সচেতনতা তৈরি করতে চাই সাধারন মানুষের মাঝে। আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে এই সচেতনতামুলক কার্যক্রম শুরু করেছি এবং এই কার্যক্রম সারাদেশে ছড়িয়ে দেয়াই আমাদের প্রত্যাশা।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com