কসবায় জনি ও অন্ধ বৃদ্ধা হত্যার ঘটনায় রহস্য উদঘাটন, ৭জন আসামী গ্রেফতার

সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০ | ৬:৪৪ অপরাহ্ণ | 355 বার

কসবায় জনি ও অন্ধ বৃদ্ধা হত্যার ঘটনায় রহস্য উদঘাটন, ৭জন আসামী গ্রেফতার
গ্রেফতারকৃত আসামীরা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় আলোচিত জনি হত্যা সহ দুই হত্যা মামলার প্রধান আসামীসহ ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে কসবা থানা পুলিশ। এ নিয়ে সোমবার (১০ আগস্ট) সকাল ১১টায় কসবা থানায় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।


সংবাদ সম্মেলেনে সকল আসামীদের গ্রেফতারের বিষয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সহকারী পুলিশ সুপার (কসবা সার্কেল) মিজানুর রহমান ভুইয়া। প্রথমে জনি হত্যার বিষয়টি উল্লেখ করে বলেন, জনিকে হত্যা করেছে একদল মোটর সাইকেল ছিনতাইকারী। পুলিশ জনি হত্যায় জড়িত সকল আসামীদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিজ্ঞ আদালতে পাঠালে বিজ্ঞ আদালতে তাদের জবানবন্দী রেকর্ড করেন। আদালতের নিকট ৭জনই হত্যার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। উল্লেখ্য, কসবা উপজেলার বুগির গ্রামের মোস্তফা কামালের ছেলে মোটর সাইকেলের গ্যরেজের মালিক জনি গত ৮ জুলাই রাতে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের কুটি চৌমূহনী এলাকায় বাড়ি যাওয়ার পথে খুন হয়।
পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তির মাধ্যমে আসামীরা জানায়, রাত ১০টায় মোটর সাইকেল যোগে জনি বাড়ি যাওয়ার পথে জনৈক মইনুলের বাড়ির কাছে রশি দিয়ে পথরোধ করে জনিকে নৃশংসভাবে খুন করে এবং তার মোটর সাইকেলটি নিয়ে যায়। মোটর সাইকেলটি ৬০ হাজার টাকায় গণেশপুরের জলিল মিয়ার পুত্র রানা (২৫) ও সোনারগাঁও গ্রামের অবিদ মিয়ার পুত্র আরিফের নিকট বিক্রি করে। এই মোটরসাইকেলের সুত্র ধরেই খুনিদের খোঁজ মিলে। এ ছিনতাই মিশনে নেতৃত্ব দেয় বুগীর গ্রামের আলমগীর সরকারের পুত্র তানভীর সরকার (২৭)। অন্যান্য আসামীরা হলো, জাহিদুল হক এর ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪০), ইকবাল হোসেনের ছেলে ইয়ার হোসেন (৩০) শাজাহান এর ছেলে গোলাম ছান্দানী (২৪), ইকবাল হোসেন এর ছেলে সুমন মিয়া (২২), আবদুল জলিলের ছেলে মহিউদ্দিন রানা, আবিদ মিয়ার ছেলে আরিফ মিয়া (২৫)। পুলিশ ছিনতাইয়ে ব্যবহৃত ১টি মোটর সাইকেল ও হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত দুইটি ছুরি উদ্ধার করেছে।

অপরদিকে সংবাদ সম্মেলনে কসবার মাইজখার গ্রামের যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার অন্ধ বোন হোসনে আরা (৬০) হত্যার আসামী একই গ্রামের জুয়েলকে গত রোববার (৯ আগস্ট) রাতে কসবা থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে সহকারি পুলিশ সুপার কসবা সার্কেল মিজানুর রহমান ভুইয়া জানান, বখাটে জুয়েল মুক্তিযোদ্ধার বোন হোসনে আরার অন্ধত্বের সুযোগ নিয়ে চুরি করতে গেলে ব্যর্থ হয়। এতে জুয়েল ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১৯ মে রাতে মাথায় কুড়ালের বাট দিয়ে আঘাত করে হত্যা করে এবং ৩ ভরি রূপা ও ৫ হাজার টাকা লুটে নেয়। পুলিশ চারগাছ বাজারে বিক্রিত ৩ ভরি রূপা উদ্ধার করে এবং এর সুত্র ধরে গ্রেফতার করে মুল আসামী জুয়েলকে।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com