আপডেট

x

ঐশরিয়া-অভিষেকের ৫০০ কোটি টাকার যৌথ সম্পত্তি

শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১০:১৩ অপরাহ্ণ | 103 বার

ঐশরিয়া-অভিষেকের ৫০০ কোটি টাকার যৌথ সম্পত্তি

বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় পরিবারের ছেলে অভিষেক বচ্চন এবং সেই পরিবারেরই বৌমা ঐশ্বরিয়া । তার উপর অভিষেক এবং  নিজেরাও স্বমহিমায় ইন্ডাস্ট্রিতে পরিচিত।

ঐশ্বরিয়া তাঁর নামের সঙ্গে বচ্চন পদবিটা জুড়ে ফেলেন ২০০৭ সালে। অভিষেককে বিয়ে করেন ঐশ্বরিয়া। ‘ঢাই অক্ষর প্রেম কে’ ছবিতে তাঁরা দু’জনে একসঙ্গে অভিনয় করেছেন। তার পর থেকেই তাঁদের বন্ধুত্বের সূত্রপাত।

বন্ধুত্ব ক্রমশ গাঢ় হতে হতে বচ্চন পরিবারের সদস্য হয়ে যান ঐশ্বরিয়া। ২০১১ সালে অভিষেক এবং ঐশ্বরিয়া মেয়ে আরাধ্যার জন্ম হয়। তার পর থেকে আরাধ্যাই তাঁদের জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠেছে।

প্রতি বছর অভিষেক আর ঐশ্বরিয়া বচ্চন কত উপার্জন করেন জানেন? আর যৌথ ভাবেই বা তাঁরা কত সম্পত্তির মালিক? ঐশ্বরিয়া এবং অভিষেকের যৌথ সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ৫০০ কোটি টাকা।

বলিউডের পাশাপাশি খেলাধুলোতেও পা দিয়েছেন অভিষেক। প্রো কবাডি লিগের ফ্রাঞ্চাইজির মালিক তিনি। তাঁর দলের নাম জয়পুর পিঙ্ক প্যান্থারস।

এ ছাড়া জুনিয়র বি ইন্ডিয়ান সুপার লিগ ফুটবল টিমেরও অন্যতম মালিক। তাঁর ফুটবল টিমের নাম চেন্নাই এফ সি।

২০১৯ সালে রিপাবলিক ওয়ার্ল্ড-এ প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, অভিষেক বচ্চনের সম্পত্তির পরিমাণ ২০০ কোটি টাকা।

আর ফিনঅ্যাপ.কো.ইন অনুযায়ী, অভিষেক বচ্চনের সম্পত্তির পরিমাণ ২০৬ কোটি টাকা এবং তাঁর বার্ষিক আয় ২০ কোটি টাকা।

আর ২০১৯ সালে টাইমস নাও ম্যাগাজিনের প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, এই সম্পত্তির বাইরে অভিষেকের একটা জাগুয়ার এক্সজে, মার্সিডিজ এস৫০০, বেন্টলে সিজিটি, রেঞ্জ রোভার ভোগ এবং মুম্বইয়ের বান্দ্রায় একটা বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট আছে।

অন্যদিকে ঐশ্বরিয়া একজন মডেল হিসাবে নিজের কেরিয়ার তৈরি করেছিলেন। ১৯৯৪ সালে মিস ওয়ার্ল্ড হন তিনি। তার পর তাঁর কেরিয়ার গ্রাফ ক্রমশ উপরের দিকে উঠেছে। বিশ্বব্যাপী একজন প্রভাবশালী তারকায় পরিণত হন তিনি।

২০০৯ সালে ভারত সরকার তাঁকে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত করে। ঐশ্বরিয়া প্রথম ভারতীয় অভিনেত্রী, যিনি ২০০৩ সালে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে জুরি সদস্য হয়েছিলেন।

টাইমস নাও-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, ঐশ্বরিয়ার মোট সম্পত্তির পরিমাণ ২৫৮ কোটি টাকা। আর তাঁর বার্ষিক আয় ১৫ কোটি টাকা।

এ ছাড়া ঐশ্বরিয়ার আঙুলে একটা ৭০ লাখ টাকার আংটি আছে। আছে একটা মার্সিডিজ এস৫০০, বেন্টলে সিজিটি। এর বাইরে দুবাইয়ে স্যা‌চুয়ারি ফলস‌্-এ একটা ভিলা এবং মুম্বইয়ের বান্দ্রায় একটা অ্যাপার্টমেন্ট আছে।

সূত্র- আনন্দবাজার পত্রিকা

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com