আপডেট

x

‘এ হ্যান্ড বুক ফর দি এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটস’- গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

শনিবার, ১১ ডিসেম্বর ২০২১ | ৯:৫৭ অপরাহ্ণ | 86 বার

‘এ হ্যান্ড বুক ফর দি এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটস’- গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) রুহুল আমিনের লেখা ‘এ হ্যান্ড বুক ফর দি এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটস’- গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। শুক্রবার বিকেলে জেলার কসবা উপজেলা সফরকালে পানিয়ারূপে নিজ গ্রামের বাড়িতে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন আইনমন্ত্রী মন্ত্রী।


মোড়ক উন্মোচনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁঁন,পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান,কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ উল আলম।

webnewsdesign.com

মোড়ক উন্মোচন করে মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেন, বইটি নতুন কর্মকর্তাদের জন্যে সহায়ক হবে। তিনি এর লেখককে ধন্যবাদ জানান।

বইয়ের লেখক রুহুল আমিন বলেন, প্রশাসন ক্যাডারের নবীন কর্মকর্তাদের মৌলিক জ্ঞান অর্জনসহ জ্ঞান স্পৃহা বৃদ্ধি করার লক্ষে আমার এ ক্ষুদ্র প্রয়াস। গ্রন্থটিতে আইনের বিভিন্ন মৌলিক গ্রন্থ যেমন- দ্য কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিউর ১৮৯৮, দ্য প্যানেল কোড ১৮৬০, দ্য ইভিডিয়েন্স অ্যাক্ট ১৮৭২, ক্রিমিনাল রুলস অ্যান্ড অর্ডার্স (ভলিউম ১ ও ২), পুলিশ রেগুলেশন অব ব্যাঙ্গল ১৯৪৩, দ্য লিমিটেশন অ্যাক্ট ১৯০৮, দ্য কোড অব সিভিল প্রসিডিউর ১৯০৮ এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানসহ অন্যান্য মূল গ্রন্থগুলো থেকে কোটেশন এবং রেফারেন্স পৃষ্ঠা নম্বরসহ বইটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, যে কেউ গ্রন্থটি পাঠ করার মাধ্যমে মূল গ্রন্থগুলোর জ্ঞান আস্বাধনের সুযোগ পাবেন। তাছাড়া গ্রন্থটিতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রাসঙ্গিক বিষয়ের অবতারণা করা হয়েছে। যা বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটদের আমলে গ্রহণের এখতিয়ার বহির্ভুত। কিন্তু ব্যক্তিগত, সামাজিক রাষ্ট্রীয় তথা চাকুরিজীবন থেকে বিচ্ছিন্ন নয়।

এরআগে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রুহুল আমিনের ‘উদ্যত তর্জনী’ নামের একটি কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়। শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার বাড়ৈপাড়া গ্রামের সন্তান রুহুল আমিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজকল্যানে ১ম শ্রেনীতে প্রথমস্থানসহ স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। এরপরই বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা হিসেবে চাকুরী জীবন শুরু করেন। স্নাতকোত্তর পর্যায়ে সর্বোচ্চ নম্বর অর্জনের কৃতিত্ব স্বরূপ ২০০৬ সালে মহামান্য রাষ্ট্রপতি কর্তৃক স্বর্ণপদকে ভূষিত হন তিনি।


মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com