এবার ২২০টি পরিবারে ‘বাউনবাইরার কতা’ পৌঁছে দিলো ‘ঈদের আহার’

শুক্রবার, ২২ মে ২০২০ | ১:১০ পূর্বাহ্ণ | 313 বার

এবার ২২০টি পরিবারে ‘বাউনবাইরার কতা’ পৌঁছে দিলো ‘ঈদের আহার’
প্রতিটি ব্যাগে থাকা খাদ্যসামগ্রী ও নগদ টাকা

প্রতিবারের ন্যায় এবারও ২৭ রমজান হতদরিদ্র, অসহায় ও কর্মহীনদের পাশে দাঁড়িয়েছে ‘বাউনবাইরার কতা’। কিন্তু এবার প্রবীণদের ঈদি বা দরিদ্রদের স্বাবলম্বী প্রজেক্ট নিয়ে নয়, সংগঠনটির পক্ষ থেকে এইবার মহামারী করোনার প্রাদুর্ভাবে অসহায় হয়ে পড়া পরিবার গুলোর হাতে ঈদের উপহার খাদ্যসামগ্রী তুলে দিয়েছে। বৃহস্পতিবার সংগঠনটির পক্ষ থেকে ২২০টি পরিবারের বাড়ি বাড়ি বঈদের আহার’ নামে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাসের মহামারীতে সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশে এর প্রভাব পড়েছে। এর ফলে অনেক মানুষ কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবযাপন করছে পরিবার নিয়ে। এই অবস্থায় এসব মানুষের পাশে দাঁড়ানোর ৩য় বারের মতো উদ্যোগ নেয় ফেসবুক ভিত্তিক সংগঠন ‘বাউনবাইরার কতা’। এর ফলে এ পর্যন্ত তিন ধাপে সংগঠনটি ৮২৫টি পরিবারকে সহযোগিতা করেছে।


‘বাউনবাইরার কতা’র মানব কল্যাণ মূখী কাজে এবার সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ‘তিতাস স্পোর্টস ক্লাব ইউকে’।

‘ঈদের আহার’ নামে বিতরণ করা খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে একটি পরিবারকে দেওয়া হয় চাল ৮ কেজি, পোলাও চাল ১কেজি, তেল ১ কেজি, আলু ২কেজি, ডাল আধা কেজি, পেঁয়াজ ১কেজি, সেমাই ১প্যাকেট, দুধ ১০০গ্রাম, চিনি আধা কেজি, মুরগি ও মশলা বাবদ নগদ ২০০টাকা। কোন প্রকার আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয় এসব খাদ্যসামগ্রী।

এর আগে দেশে করোনা ভাইরাসের পাদুর্ভাব বিস্তারের প্রথম দিকেই এই সংগঠনটির পক্ষ থেকে ‘প্রজেক্ট আহার’ নামে নিম্ন মধ্যবিত্ত, অসহায় ও হতদরিদ্র মানুষের জন্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। গত পহেলা এপ্রিল সংগঠনের পক্ষ থেকে ৩৫৫টি পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়। এরমধ্যে প্রতিজনকে দেওয়া হয় ৮কেজি চাউল, ৩কেজি আটা, ৪কেজি আলু, এক কেজি ডাল, এক কেজি তৈল, এক কেজি পেঁয়াজ, ২৫০গ্রাম রসুন, আধা কেজি সাবান ও একটি মাস্ক।

করোনা ভাইরাসের মহামারীতে সংগঠনটি এই কর্মকাণ্ডে অতীতের ন্যায় গ্রহণযোগ্যতা, স্বচ্ছতা ও উদ্দীপনা দেখে মানুষের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলে। পরবর্তীতে দাতাদের আগ্রহ দেখে সংগঠনটির পক্ষ থেকে ‘ প্রজেক্ট আহার-২’ নামে আবার উদ্যোগ নেওয়া হয় এই খাদ্য সহায়তা বিতরণ অব্যাহত রাখার। গত ২১এপ্রিল সংগঠনটির পক্ষ থেকে কোন প্রকার আনুষ্ঠানিকতা ছাড়া ২৫০টি পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়। দ্বিতীয় পর্বের ২৫০টি পরিবারের মধ্যে ছিলো স্কুল শিক্ষক, মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, হেফজখানার হাফেজ, সংস্কৃতি কর্মী,স্বল্প বেতনের চাকুরিজীবি, বিভিন্ন ক্ষেত্রে কর্মজীবী, ব্যবসায়ী সহ মধ্য ও নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবার।

এই বিষয়ে বাউনবাইরার কতা’র এডমিন ডা. মাহবুবুর রহমান এমিল বলেন, গত কয়েক বছর যাবত আমরা রমজান মাসে প্রবীণদের ঈদি প্রদান ও হতদরিদ্রের স্বাবলম্বী করার উদ্যোগ নিয়ে থাকি। কিন্তু দেশে যে অবস্থা এখন চলছে এই মুহূর্তে কাউকে স্বাবলম্বী করা বা কারো জন্য ঈদের কাপড় কেনা একটা বিলাসিতা। এই মুহূর্তে আমাদের আশেপাশের অনেক মানুষ খুব কষ্টে আছে একমুঠো খাবার এর জন্য।

তাই এইবার স্বাবলম্বী বা ঈদি না দিয়ে আমরা “ঈদের আহার” প্রদান করেছি সেই সকল মানুষের জন্য, যারা আয়বঞ্চিত হয়ে বাসায় বসে আছে। অন্তত ঈদের দিন একটু মিষ্টি মুখ ও পোলাউ মাংস খেতে পারে আর তারই সাথে আরো ১০ দিন চলার মত খাবার দেওয়া হয়েছে।

সংগঠনটির অন্যতম এডমিন সোহেল রানা ভূইয়া বলেন,  যারা এই কাজে আমাদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তাদের প্রতি সংগঠনের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই। আমরা চেষ্টা করে যাব নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী গ্রুপের সকল সদস্যদের নিয়ে সাধারণ মানুষের পাশে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে।

রাফি//—

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com