আপডেট

x

এবার কুরবানিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিক্রি হবে ৭০০ কোটি টাকার পশু

বুধবার, ২৯ জুন ২০২২ | ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ | 114 বার

এবার কুরবানিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিক্রি হবে ৭০০ কোটি টাকার পশু

করোনার ধকল কাটিয়ে উঠার আগেই গোখাদ্যের মূল্যবৃদ্ধি ‘মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা’ হয়ে দাঁড়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার খামারীদের জন্য। অনেকেই মুখ ফিরিয়ে নেন গবাদি পশু পালন থেকে। তবে সংকট কটিয়ে ঈদুল আজহা উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এবার অন্তত ৭০০ কোটি টাকার পশু বেচাকেনা হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রায় সাড়ে ১২ হাজার খামারীর কাছে কুরবানিযোগ্য পশু রয়েছে ১ লক্ষ ৭০ হাজারের কিছু বেশি। কিন্তু চাহিদার তুলনায় এখনও সংকট রয়েছে প্রায় ৫৯ হাজার পশুর। খামারগুলোতে দেশী, শাহীওয়াল ও ফ্রিজিয়ানসহ বিভিন্ন জাতের গরু-মহিষ পালন করছেন খামারীরা।

webnewsdesign.com

করোনার কারণে গত দুই বছর ঈদুল আজহায় গরু-মহিষ বিক্রি হয়েছে কম। প্রত্যেক খামারীকে লোকসান গুণতে হয়েছে তখন। কিন্তু এবার করোনা পরিস্থিতি ভালো থাকলেও গোখাদ্যের মূল্যবৃদ্ধির কারণে পশু পালনে খরচ বেড়েছে। এ অবস্থায় সীমান্ত দিয়ে চোরাই গরু এলে খামারীদের পথে বসতে হবে।

ডেইরী ফারমার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. সাইফুদ্দিন খান শুভ্র বলেন, করোনাকালীন লোকসান আর গোখাদ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে খামারীদের অবস্থা এমনিতেই শোচনীয়। তাই খামারীদের বাঁচাতে চোরাই পথে গরু আসা বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. এ. বি. এম. সাইফুজ্জামান বলেন, জেলায় কুরবানির জন্য পশুর চাহিদা রয়েছে ১ লাখ ৭০ হাজার ৫২০টি। কিন্তু খামারীদের কাছে কুরবানির জন্য প্রস্তুত আছে ১ লাখ ১১ হাজার ৬১৭টি গরু, মহিষ ও ছাগল।তবে অন্যান্য জেলা থেকেও হাটগুলোতে পশু আসে। ফলে সংকট কেটে যাবে বলে আশা প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের।


মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com