আপডেট

x

আশুগঞ্জে স্কুলে চাঁদাবাজির অভিযোগে পত্রিকার ‘সম্পাদক’ আটক,পালালো সহযোগী

মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৮:৫১ অপরাহ্ণ | 108 বার

আশুগঞ্জে স্কুলে চাঁদাবাজির অভিযোগে পত্রিকার ‘সম্পাদক’ আটক,পালালো সহযোগী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কাছে চাঁদা চাওয়ার অভিযোগে দুই সংবাদকর্মী বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে আশুগঞ্জ থানায় মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়। শরীফপুর ইউনিয়নের পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মো. হাবিবুর রহমান বাদি হয়ে দুইজনকে আসামী করে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় সাংবাদিক পরিচয়ের চাঁদাবাজি ও ভয়ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগ আনা হয়। মামলার আসামীরা হলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক সত্যের দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক-প্রকাশক আলী আযম ও পলাতক আশিকুর রহমান রনি।


এর আগে সকালে উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক হন আলী আযম নামে একটি স্থানীয় সাপ্তাহিকের সম্পাদক। এসময় আশিকুর রহমান রনি নামে আর এক সহযোগি দৌড়ে পালিয়ে যান।

webnewsdesign.com

আটক আলী আযম উপজেলার তারুয়া গ্রামের মৃত হোমিও ডাক্তার গোলাম মোস্তফার ছেলে এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক সত্যের দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক। পলাতক আশিকুর রহমান রনিকে খুঁজছে পুলিশ। তাকে এরআগে ২০২০সালের ৬ আগস্ট ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় ৬মাসের সাজাপ্রাপ্ত আসামী হওয়া গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। বর্তমানে সপ জামিনে আছেন।

শরীফপুর পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. হাবিবুর রহমান বলেন, সকালে স্কুলে শিক্ষকরা যার যার ক্লাশে পাঠদান নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। এসময় আলী আযম ও আশিকুর রহমান রনি নামের দুইজন নিজেদেরকে সাংবাদিক ও আশুগঞ্জ প্রেসক্লাবের যথাক্রমে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দেন। পরে তারা স্কুলের হাজিরা খাতা ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ গোপন নথি দেখতে চান। শিক্ষকরা তা না দেখালে আলী আযম ও আশিকুর রহমান রনি শিক্ষকদের উপর ক্ষিপ্ত হন। এক পর্যায়ে শিক্ষকদের গালাগাল শুরু করে তারা। পরে তারা শিক্ষকদের অনিয়ম নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করার হুমকি দেন। পরে শিক্ষকরা তাদের অপরাধ কি জানতে চাইলে তারা কথা না বাড়িয়ে বিষয়টি সমাধান করার কথা বলেন। কিভাবে সমাধান করতে হবে জানতে চাইলে আলী আযম ও আশিকুর রহমান রনি শিক্ষকদের কাছে ২০ হাজার টাকা দাবি করেন। শিক্ষকরা কেন টাকা দিবেন এই কথা বলার সাথে সাথে দুজনেই উত্তেজিত হয়ে তাদের আবারো গালাগাল শুরু করেন। শোরগোল শুনে এলাকাবাসী এগিয়ে আসেন। তারা যে প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক কিংবা মূলধারার সাংবাদিক নন তা নিশ্চত হন। পরে অবস্থা খারাপ দেখে আশিকুর রহমান রনি দৌড়ে পালিয়ে যায়। এসময় এলাকাবাসী আলী আযমকে আটক করে পুলিশের কাছে তুলে দেয়।

আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজাদ রহমান বলেন, সকালে আলী আযমকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। সন্ধ্যায় স্কুল কমিটির পক্ষ থেকে দায়ের করা মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়েছে। আটক আলী আযমকে এই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।


মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com