আশুগঞ্জে মহাসড়কে আড়াইঘন্টায় মিলল চার ট্রাক-পিকআপে বিপুল পরিমাণ গাঁজা

বৃহস্পতিবার, ০৭ মে ২০২০ | ৫:০২ অপরাহ্ণ | 462 বার

আশুগঞ্জে মহাসড়কে আড়াইঘন্টায় মিলল চার ট্রাক-পিকআপে বিপুল পরিমাণ গাঁজা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে র‍্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের মহাসড়কে তল্লাশিকালে পৃথকভাবে তিনটি পিকআপ ও একটি ট্রাকে পাচারকালে ১৯৪কেজি ৫শত গ্রাম গাঁজা সহ ৭জনকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৮টা থেকে সোয়া ১০টা পর্যন্ত ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের আশুগঞ্জ গোল চত্বরে চেক পোস্টে এসব আটক করা হয়।

র‍্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্প থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি এই তথ্য জানানো হয়।


এতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার সকালে ভৈরব র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের এবং স্কোয়াড কমান্ডার চন্দন দেবনাথ এর নেতৃত্বে একটি আভিযানিক দল ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের আশুগঞ্জ গোল চত্ত্বরের উপর তল্লাশী চৌকি স্থাপন করে গাড়ী তল্লাশী করতে থাকেন।

তল্লাশিকালে সকাল পৌনে ৮টার দিকে একটি পিকআপে সাড়ে ৩৮ কেজি গাঁজা ও মাদক বিক্রির ১০হাজার টাকা পাওয়া যায়। এসময় পাচারের সাথে জড়িত থাকায় হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাটের শ্রীকুটা গ্রামের মৃত আরজু মিয়ার ছেলে মোঃ ফজর আলী (৩৩) ও একই এলাকারমৃত সিদ্দিক আলীর ছেলে মোঃ শুভ (২৫)।

পুনরায় গাড়ী তল্লাশী করতে থাকলে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে একটি ট্রাকটি তল্লাশীকালে ৫৬কেজি গাঁজা ও মাদক বিক্রির ৮ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এসময় সহ আটক টাঙ্গাইলের গোপালপুরের জামতৈল গ্রামের মোঃ সাইফুল ইসলামের ছেলে মোঃ শিমুল মিয়া (২১) ও একই উপজেলার ভাড়ারিয়ার মৃত সাখাওয়াত হোসেনের ছেলে মোঃ হাফিজুর রহমান (২০) আটক করা হয়।

সকাল ৯টা ১০মিনিটের দিকে আবার গাড়ী তল্লাশী করতে থাকলে একটি পিকআপ ভ্যান থামিয়ে তল্লাশীকালে ৪০কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়। এসময় হবিগঞ্জের মাদবপুর উপজেলার নয়নপুরের মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে মোঃ তৈয়ব আলী(২৯) ও গাজিপুরের জয়দেবপুর উপজেলার মির্জাপুরের আঃ মান্নানের ছেলে সোহরাব (২৫) আটক করা হয়।

পরবর্তীতে আবার গাড়ী তল্লাশী করতে থাকলে সকাল সোয়া ১০টার দিকে আরও একটি পিকআপ ভ্যান তল্লাশী করে মাদক বিক্রির ১৯০০ টাকাসহ ৬০কেজি গাঁজা পাওয়া যায়। এসময় রংপুরের মিঠাপুকুরের বকতিপুর গ্রামের মোতালেব হোসেনের ছেলে মোঃ জামাল হোসেন (২৮) আটক ও পিকআপটি জব্দ করা হয়।

এসব ঘটনায় আসামীদের বিরুদ্ধে আশুগঞ্জ থানায় পৃথক পৃথক মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com