বেইলি রোড অগ্নিকাণ্ড

“আমার তো সব শেষ! ছেলে, বৌ, নাতি-নাতিন কেউ নাই”

শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪ | ১১:০২ অপরাহ্ণ |

“আমার তো সব শেষ! ছেলে, বৌ, নাতি-নাতিন কেউ নাই”
নিহত প্রবাসী কাউসারের মা হেলেনা বেগম।-ছবি: সরোদ
Spread the love

রাজধানির বেইলী রোডে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার ইতালি প্রবাসীর পরিবারের ৫ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের গ্রামের বাড়ি শাহবাজপুর ইউনিয়নের খন্দকার পাড়ার সৈয়দ বাড়ি। নিহতদের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম।

নিহতরা হলেন, জেলার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর গ্রামের আবুল কাসেমের ছেলে ইতালি প্রবাসী সৈয়দ মোবারক হোসেন কাউসার (৫০), সৈয়দ কাউসার, তার স্ত্রী স্বপ্না (৩৫), মেয়ে কাশফিয়া (১৭),নূর (১৩)ছেলে আব্দুল্লা (৭)। তারা রাজধানীর মধুবাগ এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।

webnewsdesign.com

ছেলে স্ত্রী-সন্তান সহ নিহতের খবরে মা হেলেনা বেগম বিলাপ করছেন। হেলেনা বেগম বলেন, ‘আমার ছেলে বিদায় নিতে আওয়ার কতা ছিল। অহন শেষ বিদায় নিতে আইবো। আমার ছেলেরে কেউ আইন্না দেও। কেউ আমার ছেলেরে আইন্না দিতারবা। আমার তো সব শেষ। ছেলে, বৌ, নাতি-নাতিন কেউ নাই। আমি অহন কেমনে বাঁচুম। তোমডা কেউ হেরারে আইন্না দেও।’

নিহত কাউসারের পরিবারের সদস্যরা জানান, কাউসার প্রথমে সিঙ্গাপুর প্রবাসী ছিলেন। । প্রায় ২০ বছর আগে সে ইতালি পাড়ি দেন। এরমাঝে তার দেশে আসা যাওয়া ছিল। গত দেড় মাস আগে প্রায় দুই বছর পর ইতালি থেকে দেশে ফেরেন কাউসার। তার স্ত্রী-সন্তানদের ইতালি নিয়ে যাওয়ার জন্যে ভিসা ও টিকেট সম্পন্ন করেছিলেন। আগামী ২০ মার্চ তাদেরকে নিয়ে কাউসার ইতালি যাওয়ার কথা ছিল।

বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে রেস্টুরেন্টে খাবার খেতে যান তিনি। সেখানে অগ্নদগ্ধ হয়ে কাউসার, তার স্ত্রী স্বপ্না, মেয়ে কাশফিয়া, মেয়ে নূর, ছেলে আব্দুল্লাহ নিহত হন। শুক্রবার বাদ আসর জানাজা শেষে তাদের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com