আপডেট

x

আজীবনের জন্যে আত্মীয়তার ডোরে বেধে নেওয়া আমি ঋণী: বিদায়ী জেলা প্রশাসক

বুধবার, ১২ জানুয়ারি ২০২২ | ১০:৫৭ অপরাহ্ণ | 84 বার

আজীবনের জন্যে আত্মীয়তার ডোরে বেধে নেওয়া আমি ঋণী: বিদায়ী জেলা প্রশাসক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত উদ-দৌলা খাঁনকে বিদায় সংবর্ধনা দিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব। সদর উপজেলার রামরাইল ইউনিয়নের সেন্দ এলাকায় প্রতিষ্ঠিত ডিসি পার্কে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠান প্রশাসনের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের মিলন মেলায় পরিনত হয়। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ছাড়াও জেলার বিভিন্ন অফিস প্রধান, বিভিন্ন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগন এবং জেলা পর্যায়ে কর্মরত সকল গনমাধ্যমকর্মী যোগ দেন।


বুধবার দুপুরে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রেস ক্লাব সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামির সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, সিভিল সার্জন মো. একরাম উল্লাহ, জেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক আল মামুন সরকার,সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজুর রহমান ওলিও।

webnewsdesign.com

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন।

জেলা প্রশাসকের নানা কর্মগুন, সাংবাদিকদের সঙ্গে তার সম্পর্কের নানাদিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আরজু ও সৈয়দ মিজানুর রেজা, সাবেক সহ সিনিয়র সহ-সভাপতি আল-আমিন শাহীন,সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. সাদেকুর রহমান, আ ফ ম কাউসার এমরান ও দীপক চৌধুরী বাপ্পী, প্রেস ক্লাব সহ-সভাপতি ইব্রাহিম খান সাদাত।

প্রেসক্লাব সদস্য ও গণমাধ্যম কর্মীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আব্দুন নূর, সৈয়দ মোহাম্মদ আকরাম, নিয়াজ মোহাম্মদ খান বিটু, বাহারুল ইসলাম মোল্লা, উজ্জ্বল চক্রবর্তী, বিশ্বজিৎ পাল বাবু, শাহাদৎ হোসেন, মাসুক হৃদয়, হাবিবুর রহমান পরাভেজ প্রমুখ।

এর আগে প্রেসক্লাব কার্য নির্বাহী পরিষদ নেতা ইব্রাহিম খান সাদাত, সৈয়দ রিয়াজ আহমেদ অপু, শাহজাহান সাজু,  এইচ এম সিরাজ, মজিবুর রহমান খান, মনির হোসেন ও ফরহাদুল ইসলাম পারভেজ জেলা প্রশাসককে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। পরে ক্রেস্ট প্রদান করেন প্রেসক্লাব সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাচিক শিল্পী মনির হোসেন।
বিদায়ী সংবর্ধনার জবাবে জেলা প্রশাসক হায়াত উদ-দৌলা খান বলেন, আমি ব্যক্তিগত ভাবে আপনাদের কাছে অনেক অনেক ঋণী। অনেকভাবে আপনারা আমাকে ঋণী করেছেন। প্রথমত ঋণী করেছেন সরকারের যে নীতি ও পরিকল্পনা মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে তথ্য দিয়ে, বিভিন্ন রকমের ভুল ভ্রান্তিকে উপস্থাপন করে কাজকে আরো সঠিক ভাবে করার ক্ষেত্রে আপনারা আমাকে সহায়তা করেছেন। সেজন্য আপনাদের কাছে আমি ঋণী।


তিনি বলেন, চাকুরি করতে এসে আপনাদের সাথে ব্যক্তিগতভাবে মিশে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মানুষের হৃদয়ের সৌন্দর্য আমি উপলব্ধি করতে পেরেছি এজন্যও আমি ঋণী। সংবাদ মাধ্যম উত্তম প্রশাসন পরিচালনায় যে পরিপূরক হতে পারে এর একটি মডেল আপনারা দেখিয়েছেন। আপনারা আমাকে যে সৌজন্যে দেখিয়েছেন, মায়ার বাধনে বেধেছেন, আজীবনের জন্যে আত্বীয়তার ডোরে বেধে নিয়েছেন সেজন্যে আমি ঋনী। আপনাদের একজন হয়ে সারাজীবন সংযুক্ত থাকবো। এই সম্পর্ক আজীবন অটুট থাকবে।

 

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com