আখাউড়ায় শ্রমিকলীগ নেতার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাকে ‘লাঞ্ছিত’ করার অভিযোগ

সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪ | ১০:২৪ অপরাহ্ণ |

আখাউড়ায় শ্রমিকলীগ নেতার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাকে ‘লাঞ্ছিত’ করার অভিযোগ
অভিযুক্ত শ্রমিকলীগ নেতা ইবনে মাসুদ।-ফাইল ছবি
Spread the love

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি ইবনে মাসুদ লাকসুর  বিরুদ্ধে মো. আব্দুস সামাদ নামে এক বীর মুক্তিযোদ্ধাকে ‘লাঞ্ছিত’ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ থানায় জমা দেন বীর মুক্তিযোদ্ধারা। এ সময় তারা এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে দ্রুত বিচার দাবি করেন।

জানা গেছে ইবনে মাসুদসহ কয়েকজনের নেতৃত্বে আখাউড়া পৌরসভার বিভিন্ন সড়কে যানবাহন থেকে চাঁদা তোলা হয় বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। চাঁদার বিষয়ে প্রতিবাদ করায় বীর মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্ছিত হতে হয় বলে ওই অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

webnewsdesign.com

থানায় লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পৌরসভার ইজারার নাম করে ইবনে মাসুদ সহ কয়েকজনের নেতৃত্বে ছোট যানবাহন থেকে প্রতিদিন ২০ থেকে ৫০ টাকা ও বড় যানবাহন থেকে ৫০ থেকে ২০০ টাকা আদায় করা হয়। পৌরসভার নিয়ম অনুসারে শুধুমাত্র নির্ধারিত স্ট্যান্ড ব্যবহারকারি যানবাহন থেকে দৈনিক ১০ টাকা হারে টাকা তোলার কথা থাকলেও এর তোয়াক্কা করছেন না চাঁদাবাজরা।

এরপর গত ২০ এপ্রিল দুপুরে আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় কয়েকজন ভারতীয় যাত্রী স্থলবন্দরে যাওয়ার জন্য একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় উঠেন। এ সময় অটোরিকশার চালকের কাছে এক ব্যক্তি চাঁদা দাবি করে। চালক চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ার ভারতীয় যাত্রীদেরকে ওই অটোরিকশা থেকে নামিয়ে দেওয়া হয় এবং অটোরিকশার চাবি নিয়ে যাওয়া হয়। বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ ঘটনার প্রতিবাদ করেন। এ ঘটনায় চাঁদা চাওয়া ব্যক্তি তার উপর ক্ষিপ্ত হন ও আপত্তিজনক আচরণ করেন।

এক পর্যায়ে ইবনে মাসুদকে ফোন করেন চাঁদা দাবি করা ব্যক্তি। ইবনে মাসুদ ৫-১০ মিনিটের মধ্যে ২০-২৫ জন লোক নিয়ে এসে আব্দুস সামাদকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন। মুক্তিযোদ্ধার গায়ে পরিহিত একটি লগো খুলে ফেলার হুমকি দেয়। এ সময় মুক্তিযোদ্ধারদেরকে হেয়প্রতিপন্ন করে কথা বলে আব্দুস সামাদের উপর চড়াও হয় ইবনে মাসুদ। আশেপাশে থাকা লোকজন তাকে এসে রক্ষা করেন।

এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা নজরুল হক ধনুসহ কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা বলেন যানবাহন থেকে চাঁদা তোলার নামে আখাউড়াতে এক ধরণের অরাজকতা চলছে।  একজন মুক্তিযোদ্ধার এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় লাঞ্ছিত করার বিষয়টি খুবই দু:খজনক। ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদেরকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তারা।

এবিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ইবনে মাসুদ মোবাইল ফোনে বলেন, ‘স্টেশন এলাকার নিয়ম হল সিরিয়াল অনুযায়ি সিএনজি অটোরিকশা চলবে। কিন্তু সেদিন সিরিয়াল ছাড়া একজন চালক তার গাড়িতে যাত্রী উঠালে এ নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে বিতন্ডা হয়। পরে আমি এলে মুক্তিযোদ্ধার সঙ্গে বাক বিতন্ডা হয়।’

আখাউড়ায় পৌরসভার চাঁদাবাজির অভিযোগ এর আগে র‍্যাবের অভিযানে ৫ জন আটক হয়েছিল।  পরে তারা জামিনে ছাড়া পেয়ে আবারও চাঁদাবাজিতে লিপ্ত হয়েছে।

এবিষয়ে আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. নূরে আলম বলেন,  এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি, বিষয়টি খতিয়ে দেখে পরবতী ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

-আশরাফুল মামুন /

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com