আপডেট

x

আখাউড়ায় শ্মশাণে যাওয়ার রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ, তিন ঘন্টা পর খোলা হলো বেড়া

সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২ | ৯:৪২ অপরাহ্ণ | 26 বার

আখাউড়ায় শ্মশাণে যাওয়ার রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ, তিন ঘন্টা পর খোলা হলো বেড়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলায় শ্মশাণে যাওয়ার রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সোমবার (২৮ নভেম্বর) সকালে উপজেলার মোগড়া গ্রামে সুধীর পাল নামে এক ব্যক্তি মারা গেলে লাশ নিয়ে আসার পর রাস্তা বন্ধ দেখতে পেয়ে লোকজন অপেক্ষা করতে থাকে।


পরে পুলিশ এবং স্থানীয় চেয়ারম্যান এসে বেড়া খুলে লাশ শ্মশানে নিয়ে যেতে রাস্তা করে দেন। এবং বাধা দেওয়া ব্যক্তিকে হুশিয়ার করে দেন, যেন পরবর্তীতে এমন কার্যকলাপ না করেন।

webnewsdesign.com

খবর পেয়ে উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে আসেন। উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা হয়।

মোগড়ার বাসিন্দা রতন পাল জানান, ওনার কাকা মারা গেলে সকাল সাড়ে আটটার দিকে লাশ নিয় কালী তলা শ্মশাণের দিকে যান। এ সময় দেখতে পান শ্মশাণে যাওয়ার রাস্তাটি টিনের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে রাখা হয়েছে। রাস্তা বন্ধ করে রাখায় আরো ২৫টি পরিবার সমস্যায় আছেন।

তিনি জানান, রাস্তা নিয়ে আগে থেকে সমস্যা করছিলো আলমগীর নামে এক ব্যক্তি। তিনি শ্মশাণে যাওয়ার রাস্তায় বেড়া দিয়ে দেন। উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ, ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে তিনি বেড়া সরিয়ে নেন। পরে স্থানীয় সালিসে রাস্তাটি শ্মশাণে যাওয়ার প্রমাণিত হলে আলমগীর এতে সায় দেন। সালিসের রায় অমান্য করে আলমগীর আবার বেড়া দিয়ে দেন।

এই বিষয়ে অভিযুক্ত আলমগীর হোসেন বলেন, আমি আমার রাস্তায় বেড়া দিয়েছি। এই রাস্তার মালিক আমি।


শিউলী আক্তার নামে এক নারী জানান, সকাল থেকে লাশ নিয়ে বসে আছে। রাস্তা বন্ধ থাকায় আমাদের মতো ২৫টি পরিবার বন্দি অবস্থায় আছে।

মোগড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন জানান, আমি সালিসের রায় দিয়েছি। ওরা রায় মানেনি। লাশ নিয়ে বসে থাকার কথা আমাকে জানানো হয়েছে। পরে পুলিশের সহযোগিতায় বেড়া উঠিয়ে ফেলে লাশ শ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয়।

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com