আখাউড়ায় শত বছরের রাস্তা বহাল রাখার দাবি, তোপের মুখে রেলওয়ে কর্মকর্তা

মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩ | ৯:২৪ অপরাহ্ণ |

আখাউড়ায় শত বছরের রাস্তা বহাল রাখার দাবি, তোপের মুখে রেলওয়ে কর্মকর্তা
Spread the love

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া বন্ধ হয়ে যাচ্ছে হাসপাতাল ও রেলওয়ে থানাসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে যাতায়াতের রাস্তা। রেলওয়ে জংশন উন্নয়ন কাজের নির্মাণ করা প্রতিরক্ষা দেয়ালের কারণে এই রাস্তা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। শত বছরের এই পথ রক্ষায় মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) সকালে ভুক্তভোগীরা আন্দোলনের নামে। এ সময় তারা দেয়াল নির্মাণ বন্ধ করে দেয়। এই অবস্থায় ঘটনাস্থলে এসে তোপের মুখে পড়েন এক রেলওয়ে কর্মকর্তা।

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) সকালের দিকে রেলওয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারি ও এলাকাবাসী জড়ো হয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। প্রথমের তারা রাস্তার কাজ বন্ধ করে দিয়ে আগের সড়কের উপর অবস্থান নেন। খবর পেয়ে ছুটে আসেন আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনের উর্ধ্বতন উপ-সহকারি প্রকৌশলী (পথ) মো. আব্দুল্লাহ। এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে পূর্বের সড়কে একটু দূরে দিয়ে ‘ইউলোপ’ রাস্তা নির্মাণ করা হবে বলে জানান। আর যে রাস্তাটি বন্ধ করা হয়েছে সেটি দিয়ে শুধুমাত্র লোকজন চলাচলের উপযোগি করা হবে বলে আস্বস্ত করেন। কিন্তু ওই কর্মকর্তার আশ্বাসে আস্বস্থ হতে না পেরে এলাকাবাসী বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। এ সময় তোপের মুখে পড়েন রেলওয়ের ওই কর্মকর্তা। ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. এনামুল হক খাদেম, শ্রমিক নেতা বিল্লাল চৌধুরী, সাবেক ইউপি মেম্বার মো. রুস্তম মিয়া, মো. হানিফ, সাজল খলিফা, মনির খলিফা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

webnewsdesign.com

স্থানীয়রা জানান, রেলওয়ে পশ্চিম কলোনী এলাকার কবরস্থানের পাশ দিয়ে প্রতিরক্ষা দেয়াল নির্মাণ করা হচ্ছে। দেয়াল নির্মাণ কাজ উত্তর দিক থেকে দক্ষিণ দিকে রেলওয়ে স্টেশনের দিকে আসছে। যেখানে দেয়াল নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে সেখানে মাটি, বালু ফেলে রেল বসানোর উপযোগি করে তোলা হচ্ছে। পূর্ব দিক থেকে এসে রেলওয়ে হাসপাতালে যাওয়ার যে পথ সেটি বন্ধ হয়ে গেছে দেয়ালের কারণে। থানায় যাওয়ার পথের সামনেও দেয়াল নির্মাণের কাজ চলছে। দেয়ালের অপরপ্রান্তে হাসপাতাল রেলওয়ে থানা, হাসপাতালের পাশাপাশি রেলওয়ের সহকারি পুলিশ সুপারের কার্যালয়, লোকোশেড, রেলওয়ে ক্লাব, রেলওয়ে কোয়ার্টার রয়েছে। এছাড়া শ্যামনগর ও রূপনগর এলাকার মানুষ এ পথ দিয়ে চলাচল করে।

রেলওয়ের উর্ধ্বতন উপ-সহকারি প্রকৌশলী (পথ) মো. আব্দুল্লাহ বলেন, ‘ আমরা এলাকাবাসীকে বলেছি আগের সড়ক দিয়ে লোকজন যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হবে। যানবাহন চলাচলের জন্য আরেকটি নতুন রাস্তা করে দেওয়া হবে। তারপরও বাধা দেওয়া হলে আমরা তো আর জোর করে কাজ করতে পারবো না।’

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com