অসহায়-হতদরিদ্রদের সহযোগিতায় ছুটে চলেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান জীবন

শুক্রবার, ১৫ মে ২০২০ | ৬:২৮ অপরাহ্ণ | 232 বার

অসহায়-হতদরিদ্রদের সহযোগিতায় ছুটে চলেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান জীবন

করোনাভাইরাসে প্রভাবে অসহায় মানুষের সহযোগিতা করতে রাত দিন ছুটে চলেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল কাউসার ভূইয়া জীবন। আইন, বিচার ও সাংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক এমপির পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ সহ নানান উদ্যোগ নিচ্ছেন মন্ত্রীর অত্যন্ত আস্থাভাজন সাবেক এই এপিএস।

তিনি জানান, করোনা ভাইরাসের প্রভাবে মাননীয় আইনমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমি ব্যক্তিগত একটি কন্ট্রোল রুম করেছি। মন্ত্রী মহোদয় ও আমাকে মুঠোফোনে অনবরত ম্যাসেজ দিয়ে চলেছেন অনেক জায়গা থেকে ত্রাণের জন্যে। মন্ত্রী মহোদয়কে ম্যাসেজ দিলে তিনি আমাকে ফরওয়ার্ড করে পাঠিয়ে দেন। বিশেষ করে আমাদের সমাজে এমন অনেক পরিবার আছেন যারা সরকারি ত্রাণ পান না, লাইনে দাঁড়িয়ে ত্রাণ আনতে পারেন না, তারা ম্যাসেজ দিলে রাত অথবা দিন যখনই হোক ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি প্যাকেটে ১৬কেজি করে ত্রাণ রয়েছে।


গত ২৩ এপ্রিল কসবায় প্রথম আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক এমপির ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে কর্মহীন ও অসহায় মানুষকে প্রায় ১৮লক্ষ টাকার ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু করেন। গত পহেলা মে পর্যন্ত কসবার ৩৯হাজার ৬০৫টি পরিবারের মাঝে দুই কোটি ৮০লক্ষ ৬১হাজার ৯শত টাকার ত্রাণ আইনমন্ত্রী ও দলীয় নেতাকর্মীদের পক্ষ থেকে আমার তত্বাবধানে বিতরণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের পাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর গত এপ্রিলের ১৯তারিখ কসবায় প্রথম মিটিং করি করণীয় নিয়ে। এরপর কসবায় ৩৪টি গ্রামে গিয়ে করোনা প্রতিরোধ কমিটি ও ত্রাণ কমিটি গঠন করেছি। প্রতিনিয়ত এই বিষয়ে সকলের সাথে যোগাযোগ করছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে এই সংখ্যা ৩কোটি টাকার অনেক উপরে হয়েছে। এরমধ্যে হরিজন, হিজরা, রাওতাল ও গুচ্ছগ্রামকে আমরা হট স্পট হিসেবে নিয়েছি। এগুলোতে ত্রাণ বেশি দেওয়ার চেষ্টা করছি, পাশাপাশি খেটে খাওয়া কর্মহীন শ্রমিকদের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রেখেছি।

উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, স্থানীয় হরিজন ও হিজরারা ত্রাণের জন্য ছুটাছুটি করছিল। এর মধ্যে অনেকেই ভোটার হয়নি, তাই তারা কোন জায়গা থেকে ত্রাণ পাচ্ছিলেন না। পরে আমি তাদের ত্রাণের ব্যবস্থা করে দিয়েছি, এতে নিজের আত্মতৃপ্তি পেয়েছি।

রাশেদুল কাউসার ভূইয়া জীবন বলেন, মাননীয় মন্ত্রীর এপিএস থাকাকালীন সময় থেকে অদ্যাবধি সচ্ছলতার সাথে কাজ করার চেষ্টা করেছি। উপজেলা চেয়ারম্যান হবার পর থেকে আমি শপথ করেছি, সকল অনৈতিক কাজ থেকে বিরত থাকব, দূর্নীতির বিরুদ্ধে জিরোটলারেন্স দেখাব৷

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com