আপডেট

x

অসহায় মানুষের পাশে সতীর্থ ৯৭’

রবিবার, ২৪ মে ২০২০ | ৭:১১ অপরাহ্ণ | 395 বার

অসহায় মানুষের পাশে সতীর্থ ৯৭’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সদর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী সুলতানপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ৯৭’ ব্যাচ (সতীর্থ ৯৭) এর উদ্যোগে অসহায়, ছিন্নমুল ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী উপহার হিসাবে বিতরণ করা হয়েছে। চলমান লকডাউন ও করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্র, অসহায় দিন মজুর, গৃহকর্মী ১০০টি পরিবারের মাঝে এসব বিতরণ করা হয়।


সুলতানপুরের অসহায় হতদরিদ্র পরিবারগুলোকে মা বাবা ও সন্তান সন্ততি নিয়ে ঈদের খুশি ভাগাভাগি করার জন্যই সতীর্থ ৯৭ এর এই মহতি উদ্যোগ।

webnewsdesign.com

সতীর্থ ৯৭ এর কিছু মহৎ প্রান বন্ধু আছে তারা বরাবরের মত এবারও এই ব্যবস্হা গ্রহন করেছে।

উল্লেখ্য, প্রতি বছরই দুই ঈদে গ্রামবাসী ও গ্রামের অসহায় হতদরিদ্রদের মাঝে নীরবে পাশে দাড়ায় বন্ধুদের এই গ্রুপটি। একটি বিদ্যালয়ের একটি ব্যাচ যারা কাজকে সবাই কর্মের প্রয়োজনে দেশে বিদেশে ছড়ায়ে ছিটিয়ে থাকলেও শিকড়ের টানে এক হতে এরা কখনোই ভুল করেন না। বন্যা, খড়া, ঘুুর্ণিঝড় সহজ যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগে এরা পৃথিবীর যে প্রান্তেই থাকুক, সাহায্য পাঠায় অকাতরে।

এ বিষয়ে সতীর্থ ৯৭ এর শেখ জাকিয়া রুমি বলেন- “গ্রামের মানুষ খুবই সহজ সরল। তাদের চাহিদা খুবই কম। তাদের মুখে হাসি ফুটানো খুব সামান্য একটু কাজ। শুধু দরকার আমাদের একটু উদ্যোগ, আর আমরা সে কাজটিই করেছি।” সতীর্থ ৯৭ আরেকজন শিব্বির আহমেদ জানান, আমরা ছোটবেলা থেকে ঐক্যবদ্ধ একটি বন্ধু সার্কেল এবং আমরা সেই ছোটবেলা থেকেই আমাদের স্বীয় সামর্থ্য দিয়ে গ্রামের বিভিন্ন কল্যানমুলক কর্মকান্ডে ভুমিকা রাখতে চেষ্টা করি”।

সতীর্থ ৯৭ এর একজন সফল সংগঠক এবং ঢাকা মহানগর যুবলীগ, শাজাহানপুর ইউনিটের যুবলীগ নেতা জহিরদ্দিন বাবর বলেন- “মানুষের মুখে হাসি ফুটানোর তৃপ্তিই সালাদা। আমাদের ক্ষুদ্র প্রয়াস যদি মানুষের মাঝে একটুখানিও ভাল লাগা দেয়, তবেই এটাই অামাদের প্রাপ্তি।”


পরিশেষে সতীর্থ ৯৭ এর সকল সদস্যগণ সবাইকে মানবতার কল্যানে যার যার সর্বসাধ্য দিয়ে পাশে থাকার আহবান করেন।

-প্রেস বিজ্ঞপ্তি

মন্তব্য করুন

Development by: webnewsdesign.com